• বুধবার   ২৫ মে ২০২২ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১১ ১৪২৯

  • || ২২ শাওয়াল ১৪৪৩

সর্বশেষ:
জাতীয় কবি কাজী নজরুলের ১২৩তম জন্মজয়ন্তী আজ সারাদেশে তাপমাত্রা কমতে পারে দেশীয় পণ্য নিশ্চিত করতে শুল্ক বসল দুই শতাধিক পণ্যে ভোটার তালিকা হালনাগাদে শিক্ষকদের সহায়তা করার নির্দেশ নজরুলের সৃজনশীল কর্ম বিশ্ব সাহিত্যেও বিরল

নির্বাচনে আসবেন না বললেও গোপনে প্রস্তুতি নিচ্ছেন মির্জা ফখরুল

– লালমনিরহাট বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ১৩ মে ২০২২  

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিজয়ী হয়েও এমপি হিসেবে শপথ নেননি বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। কিন্তু এবার এমন ভুল করতে চান না তিনি। এজন্য জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আসবেন না মুখে বললেও গোপনে প্রস্তুতি নিচ্ছেন মির্জা ফখরুল।

দলীয় সূত্র জানায়, বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিজয়ী হয়েও শপথ নেননি মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। কিন্তু তার এ ত্যাগ ভুলে গেছেন তারেক। এখন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের চেয়ে রুহুল কবির রিজভীকে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছেন তারেক রহমান। তাই মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের মনে ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে।

বিএনপির একটি নির্ভরযোগ্য সূত্র জানায়, মির্জা ফখরুল বাদে বিএনপির নির্বাচিত অন্য এমপিরা শপথ নেন। তার শপথ না নেয়ার বিষয়টি প্রশ্নবিদ্ধ হয়। এবার দলীয় সিদ্ধান্ত অনুযায়ী নির্বাচনে না যেতে বলা হচ্ছে। তবে গোপনে নির্বাচনে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন মির্জা ফখরুল। শুধু মির্জা ফখরুলই নন, বিএনপির বেশিরভাগ নেতাই আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে গোপনে প্রস্তুতি নিচ্ছেন। কিন্তু দলীয়ভাবে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত না আসায় সবাই মুখে কুলুপ এঁটে রেখেছেন। এছাড়া নিজ নিজ এলাকায় নির্বাচনী প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছেন বিএনপি নেতারা। এর অংশ হিসেবে বিএনপির প্রায় এক-তৃতীয়াংশ নেতা দলীয় মনোনয়নের জন্য তারেক রহমানকে টাকা দিয়ে রেখেছেন।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে মনোনয়নপ্রত্যাশী বিএনপির একাধিক নেতা বলেন, দলের অভ্যন্তরীণ বৈঠকে নির্বাচনে না যাওয়া নিয়ে আলোচনা হয়েছে। কারণ নির্বাচন বর্জন করে বিএনপি সাংগঠনিকভাবে দুর্বল হয়ে পড়েছে। আসন্ন নির্বাচনেও অংশ না নিলে দলটি অস্তিত্ব সংকটে পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে, ২০১৪ সালের নির্বাচনে অংশ নিলে বিএনপির আজকের অবস্থা হতো না। সে সময় নির্বাচন বয়কটের জন্য বিএনপিকে চড়া মূল্য দিতে হচ্ছে। ক্ষমতা তো দূরের কথা, দলের নামের আগে বিরোধী শব্দটিও আজ হারিয়েছে বিএনপি। এবার যদি একই ভুল করে তবে বিএনপি সাংগঠনিকভাবে একেবারে দুর্বল হয়ে পড়বে।

– লালমনিরহাট বার্তা নিউজ ডেস্ক –