• শনিবার   ২৫ জুন ২০২২ ||

  • আষাঢ় ১০ ১৪২৯

  • || ২৩ জ্বিলকদ ১৪৪৩

সর্বশেষ:
২৬ জুনের মধ্যে ঈদের উৎসব ভাতা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে সরকার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষক, শিক্ষার্থী সবাইকে মাস্ক পরার নির্দেশ পদ্মা সেতুর উদ্বোধন উপলক্ষে নতুন স্মারক নোট মুদ্রণ মালদ্বীপের প্রেসিডেন্টকে প্রধানমন্ত্রীর ৭০০ কেজি আম উপহার পদ্মা সেতুতে দাঁড়িয়ে ছবি তোলার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি

ছেলেকে সঙ্গে নিয়ে হেঁটে জেলায় জেলায় ঘুরছেন বাবা 

– লালমনিরহাট বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২২  

ছেলে মোস্তাফিজুর রহমানকে সঙ্গে নিয়ে গাইবান্ধা, বগুড়া, রংপুর, দিনাজপুর হয়ে লালমনিরহাটে এসেছেন সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. সাদেক আলী সরদার। তবে কোনো যানবাহনে নয়, বাবা-ছেলে এসেছেন হেঁটে। 

হেঁটে ভ্রমণে বেরিয়ে বাবা-ছেলে দেখেছেন বিভিন্ন জেলার প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন, সফল উদ্যোক্তা, গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা। ইতোমধ্যে তারা হেঁটে ১০৬৪ কিলোমিটরের বেশি পথ অতিক্রম করেছেন। গতকাল বুধবার (২২ ফেব্রুয়ারি) সকালে হেঁটে লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলার তুষভান্ডার বাজারে আসেন তারা। 

সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. সাদেক আলী সরদারের সঙ্গে থাকা ছেলে মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, দীর্ঘ পথ হেঁটে পাড়ি দেওয়ার একটি মহৎ উদ্দেশ্য আছে। সেটি আপাতত প্রকাশ করা যাবে না। আমাদের টার্গেট পূরণ হলে সাংবাদিকদের মাধ্যমে সেটি জানিয়ে দেওয়া হবে। বর্তমানে এটি আমাদের প্রশিক্ষণ বলা যেতে পারে। পুরোপুরি প্রস্তুত হলে আমাদের দেশের বাহিরে ভ্রমণ করার কথা রয়েছে।

অন্য কাউকে সঙ্গে না নিয়ে বাবাকে সঙ্গে নিয়ে হাঁটার কারণ জানতে চাইলে তিনি বলেন, বাবা-ছেলের সম্পর্ক যদি বন্ধুসুলভ না হয়, তবে হাজার হাজার কিলোমিটার পথ চলা তো দূরের কথা এক ছাদের নিচে থাকা সম্ভব নয়। তাই বাবার সঙ্গে হেঁটে এত পথ পাড়ি দিচ্ছি। বলা যেতে পারে এটিও মিশনের একটি অংশ। সবাইকে অনুরোধ করবো বাবা-মায়ের প্রতি যত্নশীল হোন। বাবা-মা হচ্ছে পৃথিবীতে বড় বন্ধু। সব বিপদে পাশে থাকতে পারে। বাবার সঙ্গে আছি বলেই এত পথ পাড়ি দিতে সক্ষম হয়েছি।

ছেলে মোস্তাফিজুরকে নিয়ে সাদেক আলী সরদার জানান, প্রতিদিন প্রত্যেকের ৩০ মিনিট হাঁটা  উচিত। তাহলে শরীর অনেক ভালো থাকবে। বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে শরীরে বাসা বাঁধে ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ, স্থুলতাসহ বিভিন্ন ধরনের রোগ। বেশি বেশি হাঁটা হাঁটি ও শরীর চর্চার পাশাপাশি পরিমিত খাদ্যাভ্যাস গড়ে তুললে শরীরে কোরো অসুখ বাসা বাঁধবে না। কিন্তু এখন মানুষ হাঁটতে চায় না। সবাইকে অনুরোধ করব অন্তত প্রতিদিন হেঁটে শরীর ভালো রাখুন।

মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে ২৬ মার্চ সিলেটের হজরত শাহজালাল (র.) মাজারে পৌঁছানোর লক্ষ্যে কয়েকদিন আগে গাইবান্ধা থেকে হেঁটে রওনা দেব আমরা। সেখানে পৌঁছে মাজার, ক্যান্টনমেন্ট ও প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শনসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা দেখব।  

সাদেক আলী সরদার বলেন, প্রতিদিন আমাদের টার্গেট ১৫০ কিলোমিটার পথ চলা। এই পথ চলায় যদি আমাদের কেউ সঙ্গী হতে চায়, তবে তাদের স্বাগত জানাব। কিন্তু এতগুলো জেলায় গিয়ে ফিরে এসেছি, কেউ আগ্রহ প্রকাশ করেনি। নতুন প্রজন্ম এখন হাঁটতে চায় না। গাড়িতে চলতে পছন্দ করে। এতে করে শরীরের অনেক ক্ষতি হচ্ছে। তাই সবার প্রতি অনুরোধ, হাঁটার অভ্যাস করুন।

তিনি আরও বলেন, বিভিন্ন জেলায় ঘুরে একটা জিনিস লক্ষ্য করেছি। প্রাচীন আমলের জিনিসপত্রগুলো এখন নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। বর্তমানে কেউ এসব খেয়াল করছে না। এসব যদি নষ্ট হয়ে যায়, তাহলে নতুন প্রজন্মের মানুষরা অনেক কিছুই শিখতে পারবে না। তাই এসব সংরক্ষণ করা প্রয়োজন।

জানা গেছে, গত বছরের ১৪ ডিসেম্বর প্রথম যাত্রা শুরু করেন সাদেক আলী সরদার ও মোস্তাফিজুর রহমান। তারা দেখতে যান গাইবান্ধার ফুলছড়ি থানা, একই উপজেলার আনন্দবাজার, বালাসীঘাট, কালির বাজার, বুড়াইল, পুরাতন ফুলছড়ি ঘাট ও বোঁচার বাজার, সদর উপজেলার ত্রিমোহিনী, তুলসীঘাট, বাদিয়াখালী, কামারজানী, তালুক বুড়াইল গ্রামের খাজা হাজির খামার ও সোনাইডাঙ্গা গ্রামের ভাষা সৈনিক গোলাম মোস্তফার বাড়ি, সুন্দরগঞ্জ উপজেলা শহর, একই উপজেলার সোনারায় ইউনিয়নে বামনডাঙ্গা জমিদার বাড়ি ও হরিপুর ইউনিয়নে নির্মাণাধীন বহুল আলোচিত তিস্তা সেতু দেখে বেলকা হয়ে ধুপনী, পলাশবাড়ী উপজেলা শহর, সাদুল্লাপুর উপজেলা শহর ও কয়েকশ বছরের পুরোনো ঐতিহ্যবাহী জামালপুর শাহী মসজিদ, সাঘাটা বাজার ও বোনারপাড়া, গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার নাকাইহাট ও ঐতিহাসিক রাজাবিরাট এলাকায় রাজ পরিবারের প্রত্মতাত্ত্বিক নিদর্শন, রংপুর জেলা শহর, একই জেলার পীরগঞ্জ উপজেলার মাদারগঞ্জ ও পীরগাছা উপজেলা, বগুড়া জেলা শহর, দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট উপজেলার মুঘল বা সুলতানী আমলে নির্মিত ঐতিহাসিক নিদর্শন সুরা মসজিদ ও হাকিমপুর উপজেলার হিলি স্থলবন্দর এবং সর্বশেষ মঙ্গলবার (২২ ফেব্রুয়ারি) লালমনিরহাট পরিদর্শনের মধ্য দিয়ে ১০৬৪ কিলোমিটারের বেশি পথ অতিক্রম করেন বাবা-ছেলে।

জানা যায়, গাইবান্ধা পৌরসভার মধ্য গোবিন্দপুর এলাকার বাসিন্দা সাদেক আলী সরদার (৬৬)। ছিলেন সেনাবাহিনীর অনারারি ক্যাপ্টেন (প্যারা কমান্ডো)। ২০০৬ সালে তিনি চাকরি থেকে অবসর নেন। আর ছেলে মোস্তাফিজুর রহমান (৩৫) ঢাকার চাকরি ছেড়ে দিয়ে বর্তমানে গাইবান্ধায় ব্যবসা করছেন। মোস্তাফিজুর রহমানের মেয়ে মোছা. মারজানা রহমান দ্বিতীয় শ্রেণিতে পড়ে ও ছেলে মো. মাহাদী রহমানের বয়স প্রায় তিন বছর।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা দেবব্রত কুমার রায় অজয় বলেন, বয়স বৃদ্ধির সঙ্গে শরীরে ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ, স্থুলতাসহ বিভিন্ন ধরনের রোগ বাসা বাঁধে। প্রতিদিন মানুষ এক ঘণ্টা হাঁটতে পারে। তবে বেশি হাঁটলে শরীরের অনেক ক্ষতি হতে পারে।  

– লালমনিরহাট বার্তা নিউজ ডেস্ক –