• বুধবার   ২৫ মে ২০২২ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১১ ১৪২৯

  • || ২২ শাওয়াল ১৪৪৩

সর্বশেষ:
জাতীয় কবি কাজী নজরুলের ১২৩তম জন্মজয়ন্তী আজ সারাদেশে তাপমাত্রা কমতে পারে দেশীয় পণ্য নিশ্চিত করতে শুল্ক বসল দুই শতাধিক পণ্যে ভোটার তালিকা হালনাগাদে শিক্ষকদের সহায়তা করার নির্দেশ নজরুলের সৃজনশীল কর্ম বিশ্ব সাহিত্যেও বিরল

সৈয়দপুরে বিনামূল্যে অক্সিজেন সেবায় ডাবল সেঞ্চুরি

– লালমনিরহাট বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ১০ মে ২০২২  

গভীর রাত হোক কিংবা প্রচন্ড তাপদাহ, হোক মূষলধারে বৃষ্টি । হটলাইনে কল এলেই আর বসে থাকার জোঁ নেই তাঁর। মানবসেবার জন্য স্বেচ্ছায় তার এই ছুটে চলা। শ্বাষকষ্টে ভোগা কিংবা করোনা রোগীদের জন্য বিনামূল্যে অক্সিজেন সিলিন্ডার বাসায় পৌঁছে দিতে এভাবে ছুটে চলেছে সৈয়দপুরের অক্সিজেন মানব বলে পরিচিত সামিউল আলিম।

মঙ্গলবার (১০ মে) সাঁজসকালে শহরের গোলাহাট এলাকায় তীব্র শ্বাসকষ্ট শুরু হয় ষাটোর্ধ্ব গুড়িয়া খাতুনের (৫৫)। অবস্থা বেগতিক। পরিবারের লোকজন কি করবেন তখন ভেবে পাচ্ছিলেন না। যোগাযোগ করা হয় অক্সিজেন মানব বলে পরিচিত সামিউলের সাথে। ১৫ মিনিটের মধ্যেই অক্সিজেন নিয়ে হাজির সামিউল নিজেই অক্সিমিটারে অক্সিজেন লেভেল নেমে অক্সিজেন লাগিয়ে দিয়ে যায়। মঙ্গলবার পর্যন্ত সে এভাবে ২১১ জনকে বিনামূল্যে অক্সিজেন পৌছে দিয়েছে। তার এই কাজে সহযোগিতা করেছে সহপাঠি অপূর্ব, অনলি রাজা, রিয়া, আজাদ, ফারুসহ অন্যান্যরা।
 
সৈয়দপর শহরের গোলাহাট এলাকার বাসিন্দা সামিউল আলিম (১৮)। একজন নির্ভিক করোনাযোদ্ধা। পেশায় ১০ম প্রেণির ছাত্র সে। মা, বাবা আর এক বড় বোনের ছোট সংসার সামিউলের। সামিউল বাঙ্গালিপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণির ছাত্র। বোন পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের ২য় বর্ষের ছাত্রী। মা বাসায় কাজ করেন। আর বাবা কাঠমিস্ত্রির কাজ করে টানেন ছোট সংসার। গত বছর করোনাকালে স্কুল বন্ধ থাকায় মানবসেবায় এভাবে আত্মনিয়োগ করে সে যেটা এখনো চলমান। অক্সিজেন সেবার পাশাপাশি নিয়মিত সে মানুষদের রক্ত সংগ্রহ করে দেওয়াসহ স্বেচ্ছায় মানববতার কাজ করে আসছে। পাশাপাশি নিজ সংগঠনের সাথে অভাবীদের মাঝে করছে খাদ্য সহায়তা।

বর্তমানে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘সংযোগ সৈয়দপুর’ এর হয়ে শ্বাষকষ্টে ভোগা অসহায় রোগীদের বিনামূল্যে অক্সিজেন পৌছে দিচ্ছে নিয়মিত। মূলত করোনাকাল থেকে করোনা রোগীদের বিনামূল্যে অক্সিজেন সেবা কার্যক্রম শুরু করে সংযোগ সৈয়দপুর যেটা আজও চলমান।

নীলফামারীর সৈয়দপুরের শিল্প প্রতিষ্ঠান ইকু গ্রুপের সহযোগিতায় ‘সংযোগ সৈয়দপুর’ সৈয়দপুরে একটি অক্সিজেন ব্যাংক গড়ে তুলেছে। উদ্দেশ্য হলো সৈয়দপুর উপজেলাসহ এর আরপাশের শহর গ্রামে শ্বাসকষ্টে ভোগা রোগীসহ করোনা আক্রান্তদের বিনামূল্যে দ্রুত অক্সিজেন সেবা প্রদান। সে অনুযায়ী আজও কাজ চলমান রয়েছে। গত বছরের ১৯ জুলাই ‘সংযোগ সৈয়দপুর’ অক্সিজেন সেবা কার্যক্রম শুরু করে সৈয়দপুর অঞ্চলে। এবং মঙ্গলবার (১০ মে ২০২২) পর্যন্ত সংযোগ সৈয়দপুরের হয়ে সামিউল ২১১ জনের কাছে বিনামূল্যে পৌছে দিয়েছে ওই অক্সিজেন সেবা। খবর পাওয়া মাত্র মোটরসাইকেল কিংবা রিক্সাযোগে ছুটে যায় সে।

সৈয়দপুরে করোনাভাইরাসের প্রথম এবং দ্বিতীয় ঢেউ যখন আঘাত করে তখন শ্বাসকষ্ট নিয়ে তীব্র যন্ত্রনায় বাড়িতে কাটাতে হয়েছে অনেককে। এদের একজন সৈয়দপুর কামারপুকুরের ইসাক। করোনা আক্রান্ত হবার পর সংযোগ সৈয়দপুরের সরবরাহ করা অক্সিজেন সিলিন্ডার ছিল তার জন্য এক আশীর্বাদ। "একদিন রাতে আমার অক্সিজেন স্যাচুরেশন ৮৩ এর নিচে নেমে গিয়েছিল। তখন আমি বাসায় থাকা অক্সিজেন সিলিন্ডারের সাপোর্ট নিয়েছি। একঘণ্টা সাপোর্ট নেবার পরে আমার স্যাচুরেশন ঠিক হয়েছ। এই সার্ভিসটা ঘরে বসে যে পেয়েছে একমাত্র সে-ই জানে এটা কতটা দরকার" বলেন ইসাক। শহরের অধিকাংশ পরিবার যখন করোনা সংক্রমণের আশংকায় নিজেদের নানা কাজ থেকে গুটিয়ে নিয়েছিল তখনও অক্সিজেন সিলিন্ডার নিয়ে ছুটে গিয়েছিল সামিউল।

বিষয়টি নিয়ে তার পরিবারের মধ্যেও প্রথম দিকে উদ্বেগ ও অস্বস্তি থাকলেও পরবর্তীতে সেটা কেটে গেছে। বলছিলেন সামিউলের বাবা কাঠমিস্ত্রি আইনুল হক। তিনি বলেন, এ কাজটা করতে অনেক সাহস লাগে। অনেকে ভয় পাবে এই কাজ করতে। আমরা ছেলে এই কাজটা ভালোভাবে করেছ। প্রথম দিকে মনে হতো যে সবাই ঘরের ভেতরে আছে আর সে প্রতিদিন বাইরে যাচ্ছে। তখন একটু খারাপ লাগতো। তারপর কয়েকদিন পরে আর ভয় লাগে নাই। বরং ছেলের এই মানবসেবামূলক কাজে নিজেকে গর্বিত মনে হয় এখন।

‘সংযোগ সৈয়দপুর’ এর  আহবায়ক ও শিল্প প্রতিষ্ঠান ইকু গ্রুপের ইরফান আলম ইকু জানান, সামিউল সৈয়দপুরে একজন নিবেদীত ও ভীতিহীন স্বেচ্ছাসেবী। সংযোগ সৈয়দপুরের ফিল্ড টিম লিডারের দায়িত্ব নিষ্ঠার সাথে পালন করছে সে। মঙ্গলবার সাঁজ সকালেই একজন বৃদ্ধার কাছে সে অক্সিজেন নিয়ে ছুটে গিয়েছে। ইতিমধ্যে উপজেলাজুড়ে মানবসেবায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে সে। অবশ্য টিমে সদস্য অপূর্ব, রিয়া, অনলি রাজাসহ অন্যান্যরা তাঁকে সহায়তা দিচ্ছে। আমরা তার নাম দিয়েছি অক্সিজেন মানব। তার এই অক্সিজেন সেবায় হ্যান্ডগ্লোভস, পিপিই, মাস্ক সহ ইকু গ্রুপ সব ধরনের সহযোগিতা করে যাচ্ছে এবং এটা অব্যাহত থাকবে।

কথা হয় অক্সিজেন মানব সামিউলের সাথে। তিনি জানান, মানবসেবা করতে গিয়ে এক আলাদা ধরণের আত্মতৃপ্তি অনুভব করি। আর সেই আত্মতৃপ্তি থেকেই চলছে মানবসেবা। ভালো কাজে অনুপ্রেরণা পেয়েছি সবার কাছ থেকে। সংযোগ সৈয়দপুরের ইরফান ভাই অক্সিজেন সরবরাহে আমাকে সর্বাক্ষনিক সহযোগিতা করে যাচ্ছেন। আর আমার স্বেচ্ছাসেবী হয়ে উঠার অনুপ্রেরণা আমার সংগঠন ‘আমাদের প্রিয় সৈয়দপুর’, সৈয়দপুর ইউনাইটেড ভলান্টিয়ার্স এসোসিয়েশন সুভা ও সংযোগ সৈয়দপুর আমাকে সর্বদা সাহস যুগাচ্ছে এই ভালো কাজে এগিয়ে যাওয়ার জন্য। বিশেষ করে আমার অনুপ্রেরণা নওশাদ আনসারী ভাই সর্বাক্ষনিক সহযোগিতা দিচ্ছেন। তাই বাকি সদস্য সবাই মিলেই এই মানবসেবা চালিয়ে যাচ্ছি।

সৈয়দপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. শামীম হুসাইন বলেন, সামিউল শহরের সুপরিচিত একজন সক্রিয় স্বেচ্ছাসেবী। সে উপজেলা পরিষদ কর্তৃক নিয়ন্ত্রিত ও সৈয়দপুরের সকল স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের সমন্বয়ে গঠিত সৈয়দপুর ইউনাইটেড ভলান্টিয়ার্স এসোসিয়েশনের একজন সামনের সারির ভলান্টিয়ার্স। যেহেতু আমাদের কাজই হচ্ছে ভালো কাজ করা আর ভালো কাজে সহযোগিতা করা। সামিউল ভালো কাজে সকলকে সহযোগিতা করে যাচ্ছে। সে সংযোগ সৈয়দপুরের হয়ে যে অক্সিজেন নিয়ে মানবসেবা করেছে তা দেখে সকলেই অনুপ্রাণিত হোক। মানবসেবায় এসব স্বেচ্ছাসেবীদের উপজেলা প্রশাসনের পক্ষে সকল ধরনের সহযোগিতা করা হবে বলে জানান তিনি।

– লালমনিরহাট বার্তা নিউজ ডেস্ক –