• বুধবার   ২৫ মে ২০২২ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১১ ১৪২৯

  • || ২২ শাওয়াল ১৪৪৩

সর্বশেষ:
জাতীয় কবি কাজী নজরুলের ১২৩তম জন্মজয়ন্তী আজ সারাদেশে তাপমাত্রা কমতে পারে দেশীয় পণ্য নিশ্চিত করতে শুল্ক বসল দুই শতাধিক পণ্যে ভোটার তালিকা হালনাগাদে শিক্ষকদের সহায়তা করার নির্দেশ নজরুলের সৃজনশীল কর্ম বিশ্ব সাহিত্যেও বিরল

হাতীবান্ধায় এমবিবিএস চিকিৎসক দিয়ে সিজার, নবজাতকের মৃত্যু

– লালমনিরহাট বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২৩ জানুয়ারি ২০২২  

লালমনিরহাটের হাতীবান্ধায় অনুমোদনহীন হেলথ অ্যান্ড মেডিকেয়ার নামে একটি ক্লিনিকে এমবিবিএস চিকিৎসক দিয়ে চলছে অপারেশন।

রোববার ভোরে একটি অপারেশন করতে গিয়ে এক নবজাতকের মৃত্যুও হয়েছে। শুধু হেলথ অ্যান্ড মেডিকেয়ার নয়, গোটা জেলা জুড়ে ব্যাঙের ছাতার মতো এমন অনেক ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার গড়ে উঠেছে। অনুমোদনহীন এসব প্রতিষ্ঠান বন্ধে স্বাস্থ্য বিভাগের নেই কোনো কার্যক্রম।

জানা গেছে, ঐ ক্লিনিকে রোববার ভোরে সিঙ্গিমারী ইউনিয়নের ধুবনী গ্রামের এক গর্ভবতী নারীর সিজারের সময় তার নবজাতকের মৃত্যু হয়। এ ঘটনাটি নিয়ে ঐ সময় নবজাতকের পরিবার অভিযোগ তুললে রাতেই স্থানীয় এক রাজনৈতিক দলের নেতার হস্তক্ষেপে মীমাংসাও হয়। অপারেশনটি করেন ঐ ক্লিনিকের আবাসিক সার্জন দাবিদার ডা. রাজিবুল হাসান।

খোঁজখবর নিয়ে জানা গেছে ডা. রাজিবুল হাসান তার চিকিৎসাপত্রে নিজেকে এমবিবিএস (রাজ), সি-আল্টা ও পিজিটি-সার্জারি দাবি করলেও তার বিএমডিসি রেজি নং খুঁজে দেখা যায় ভিন্ন তথ্য। তিনি একজন এমবিবিএস চিকিৎসক মাত্র।

জানা গেছে, সিজারের মতো অপারেশন করতে গেলে চিকিৎসককে অবশ্যই গাইনি বিশেষজ্ঞ ও সার্জন হতে হবে। এ ছাড়া একটি সিজার অপারেশনে একজন গাইনি ও প্রসূতি রোগ বিশেষজ্ঞ সার্জন, একজন বিশেষজ্ঞসহ একজন এমবিবিএস চিকিৎসক থাকবে অপারেশন থিয়েটারে। সেটির কোনো কিছুই মানা হয় না এ ক্লিনিকে। ঐ ক্লিনিকে শুধু ডা. রাজিবুল হাসান নামে একজন এমবিবিএস চিকিৎসক ও কয়েকজন নার্স অপারেশন থিয়েটারে সব কিছু করেন।

সরেজমিন জানা যায়, ঐ ক্লিনিকে রোববার ভোরে সিজারের সময় এক নবজাতকের মৃত্যু হয়েছে। অভিযোগ রয়েছে, ঐ নবজাতকের মাথায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

এ বিষয়ে ঐ ক্লিনিকে প্রায় ১ ঘণ্টা বসে থেকেও ডা. রাজিবুল হাসানের বক্তব্য পাওয়া যায়নি। তিনি জরুরি অপারেশনে আছে এ অজুহাতে কেটে পড়েন। পরে তার ফোনে একাধিকবার কল দিলেও তিনি কল রিসিভ করেননি।

হেলথ অ্যান্ড মেডিকেয়ার এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক রবিউল ইসলাম বলেন, সব কিছু মেনে আমরা ক্লিনিক পরিচালনা করছি। তবে তার কাছে ক্লিনিকের অনুমোদেনপত্র দেখতে চাই তিনি তা দেখাতে পারেননি।

লালমনিরহাট সিভিল সার্জন ডা. নির্মলেন্দু রায় জানান, হেল্থ অ্যান্ড মেডিকেয়ার নামে কোনো ক্লিনিকের অনুমোদন নেই। তাদের বিরুদ্ধে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

– লালমনিরহাট বার্তা নিউজ ডেস্ক –