• বুধবার   ২৯ জুন ২০২২ ||

  • আষাঢ় ১৫ ১৪২৯

  • || ২৮ জ্বিলকদ ১৪৪৩

সর্বশেষ:
করোনা রোধে শপিংমল-রেস্তোরাঁয় মাস্ক পরা বাধ্যতামূলকসহ ৬ নির্দেশনা সরকারি আয় বৃদ্ধিতে রাজস্ব আদায়ে অগ্রাধিকার দিতে হবে: স্পিকার সামাজিক নিরাপত্তা খাতে বিপ্লব সূচিত হয়েছে: সমাজকল্যাণমন্ত্রী হাওয়া ভবনের প্রভাব খাটিয়েই দুর্নীতি করতেন তারেক রহমান কুড়িগ্রামে আবারও বাড়ছে নদ-নদীর পানি

জেনে নিন কারা মুনাফিক

– লালমনিরহাট বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২৩ জুন ২০২২  

মুনাফিক একটি ইসলামি পরিভাষা যার অর্থ একজন প্রতারক বা ‘ভন্ড ধার্মিক’ ব্যক্তি। যে প্রকাশ্যে ইসলাম চর্চা করে; কিন্তু গোপনে অন্তরে কুফরি বা ইসলামের প্রতি অবিশ্বাস লালন করে। আর এ ধরনের প্রতারণাকে বলা হয় নিফাক।
মুনাফিকদের চরিত্রে কিছু মৌলিক গুণ আছে, যেগুলো একটি সমাজ, দেশ ও জাতিকে ধ্বংস করার জন্য যথেষ্ট। এ সব গুণগুলো থেকে বেঁচে থাকা আমাদের সবার জন্য একান্ত অপরিহার্য।

হজরত আব্দুল্লাহ ইবনে ওমর (রা.) বর্ণনা করেন, নবী করিম (সা.) বলেছেন, ‘যার মধ্যে চারটি দোষ থাকবে সে মুনাফিক। আর যার মধ্যে এর কোনো একটি দোষ থাকবে, সেও মুনাফিক যতক্ষণ সে তা বর্জন না করে।

(১) যখন কথা বলে তখন মিথ্যা বলে। (২) তার কাছে আমানত রাখলে খিয়ানত করে। (৩) কোনো ওয়াদা করলে ভঙ্গ করে। (৪) কারো সঙ্গে ঝগড়ায় জড়িয়ে পড়লে সীমালংঘন করে। (বুখারী)।

হজরত ইবনে ওমর (রা) বর্ণনা করেন: রাসূল (সা.) বলেছেন, কিয়ামতের দিন প্রত্যেক খিয়ানতকারীর জন্য একটি করে পতাকা থাকবে। বলা হবে, এ হচ্ছে অমুকের ছেলে অমুকের  বিশ্বাসঘাতকতা। (মুসলিম)।

হজরত আবু হুরায়রা (রা.) হতে বর্ণিত, রাসূল (সা.) বলেছেন: মহান আল্লাহ পাক বলেন, ‘তিন ব্যক্তির বিরুদ্ধে কিয়ামতের দিন আমি বাদী হব: (১) যে ব্যক্তি ওয়াদা করেও ভঙ্গ করে, (২) যে ব্যক্তি কোনো স্বাধীন মানুষকে বিক্রয় করে তার মূল্য ভোগ করে, (৩) যে ব্যক্তি কোনো কর্মচারী নিয়োগ করে তার কাছ থেকে পূর্ণ কাজ আদায় করে নেয়, কিন্তু তার পারিশ্রমিক দেয় না। (বুখারী, ইবনে মাজাহ)।

হজরত আব্দুল্লাহ ওমর (রা. ) বর্ণনা করেন, রাসূল (সা.) বলেছেন, ‘যে ব্যক্তি নিজেকে আনুগত্য থেকে মুক্ত রেখেছে, কিয়ামতের দিন আল্লাহর কাছে তার কোনোই প্রতিদান থাকবে না। আর যে ব্যক্তি কোনো ওয়াদা ভঙ্গ অবস্থায় মৃত্যুবরণ করে, সে যেন জাহেলিয়াতের মৃত্যুবরণ করলো। (মুসলিম)।

হজরত আব্দুল্লাহ ইবনে ওমর (রা) বর্ণনা করেন: রাসূল (সা.) বলেছেন, ‘যে ব্যক্তি জাহান্নাম থেকে মুক্তি এবং জান্নাতের আশা করে, সে যেন আল্লাহ ও আখিরাতে বিশ্বাস রেখে মৃত্যুবরণ করে এবং নিজের জন্য যা অপরের জন্যও তা পছন্দ করে। আর যে ব্যক্তি কোনো আমীরের আনুগত্যের ওয়াদা করে এবং আন্তরিকতার সঙ্গে তার আনুগত্য করে। আর কেউ যদি তার বিরোধিতা করে তাহলে তাকে প্রতিরোধ করে। (মুসলিম)।

– লালমনিরহাট বার্তা নিউজ ডেস্ক –