• শনিবার ১৫ জুন ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ১ ১৪৩১

  • || ০৭ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

অপরাজনীতি শুরু করেছে জামায়াত

– লালমনিরহাট বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ১১ আগস্ট ২০২৩  

বাংলাদেশের স্বাধীনতাবিরোধী রাজনৈতিক দল জামায়াতে ইসলামী নতুন করে সহিংস হয়ে উঠছে। রাজনৈতিক কার্যক্রমের নামে তারা অপরাজনীতি শুরু করেছে। সরকারি বিধিনিষেধ অমান্য করে সহিংস পন্থায় মিছিল-মিটিং করছে। সবশেষ গত শুক্রবার প্রশাসনের অনুমতি ছাড়াই রাজধানীতে মিছিল-সমাবেশ করার চেষ্টা করেছে জামায়াত।

জানা গেছে, শুক্রবার রাজধানীতে সমাবেশ ডাকে জামায়াত। কিন্তু নিবন্ধিত রাজনৈতিক দল না হওয়ায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী তাদের সমাবেশ করার অনুমতি দেয়নি। অথচ দেশকে অস্থিতিশীল করার জন্য নিয়মবহির্ভূতভাবে জামায়াত বিক্ষোভ কর্মসূচি পালনের ঘোষণা দিয়েছে।

শুধু রাজনৈতিক কর্মসূচি নয়, জামায়াত তার নিবন্ধন বাতিলের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণেরও উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। তাদের দলের নিবন্ধন বাতিলের আদেশকে চ্যালেঞ্জ করে একটি রিট পিটিশন এখন শুনানির অপেক্ষায়। আগামী ১০ আগস্ট এই রিট পিটিশন শুনানি হওয়ার কথা রয়েছে। এখন জনমনে ভীতি কাজ করছে- এই শুনানি ঘিরে জামায়াত আবারও সহিংসতা করতে পারে।

জামায়াত শুধু রাজধানীতেই নয়, সারাদেশেও তারা নতুন করে রাজনৈতিক অপতৎপরতা শুরু করেছে। এমনকি তারা প্রশাসন এবং আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে ফাঁকি দিয়ে বিভিন্ন স্থানে ঝটিকা মিছিল, বিক্ষোভ এবং কর্মী সমাবেশ করছে।

রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা মনে করছেন, স্বাধীনতাবিরোধী রাজনৈতিক দল জামায়াতে ইসলামী সব সময় এমন সহিংস। তারা সুযোগের অপেক্ষায় থাকে। এখন রাজনৈতিক মাঠে একটু সুযোগ পেয়েই তারা তাদের আগের রূপ দেখাতে শুরু করেছে। এখন থেকেই তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে। জামায়াতের এই সহিসংতার পেছনে সুনির্দিষ্ট কিছু কারণ রয়েছে বলেও তারা মনে করছেন।

উল্লেখ্য, ২০০৯ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর যুদ্ধাপরাধীদের বিচার শুরু করে। বিচার প্রক্রিয়া মধ্যে জামায়াত রাজনৈতিক দল হিসেবে নিবন্ধন হারায়। বিশেষ করে দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর রায়ের পর জামায়াত সারাদেশে যেভাবে ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগ করে, তারপর থেকে জামায়াত একটি সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে চিহ্নিত হয়। এমন বাস্তবতায় জামায়াতকে রাজনৈতিক কর্মসূচি করতে না দেওয়ার বিষয়টি সবাই ইতিবাচকভাবে নেন।

– লালমনিরহাট বার্তা নিউজ ডেস্ক –