• শনিবার ২২ জুন ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ৭ ১৪৩১

  • || ১৪ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

১৮হাজার কেজি চায়না ক্লেমন পাউডার উদ্ধার

– লালমনিরহাট বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২৮ মে ২০২৪  

লালমনিরহাটের বুড়িমারী স্থলবন্দর দিয়ে ভারত থেকে আমদারিকৃত গায়েব হওয়া ১৮ হাজার কেজি চায়না ক্লেমন পাউডারে সাথে কয়েক লক্ষ টাকার ভারতীয় কাপড়, সিটি গোল্ডের পণ্য ও সিরিঞ্জ, কেনুলা উদ্ধার করল ডিবি পুলিশ। এঘটনায় পুলিশ দুইজনকে আটক করেছেন।

মঙ্গলবার (২৮মে) দুপুরে হাতীবান্ধা উপজেলার বড়খাতার ব্যবসায়ী বকুল মিয়ার গোডাউন থেকে গায়েব হওয়া চায়না ক্লেমন পাউডারে সাথে অবৈধ পথে আসা ভারতীয় পণ্য উদ্ধার করেছেন  হাতীবান্ধা থানা পুলিশ ও গাজীপুর ডিবি পুলিশের একটি টিম।

এসময় ১শত বস্তা চায়না ক্লেমন পাউডার, ২৩টি ভারতীয় কাপড়ে বান্ডিল, ৩০ কাটুন সিরিন্স কেনুলার ও সিটি গোল্ডের ১০টা কাটুন উদ্ধার করেন।

এ ঘটনায় ঢাকা চকবাজারের মেসার্স নুর এন্টারপ্রাইজের ফয়েজ চারজনের নাম উল্লেখ করে একটি মামলা দায়ের করে। আমদানীকৃত চায়না ক্লেমন পাউডারে মুল্য পাঁচ লাখ ৪০ হাজার টাকা।

আটককৃতরা হলেন, পাটগ্রাম উপজেলা ইসলামপুর গ্রামের মৃত আব্দুল আজিজে ছেলে মো. তুহিনুজ্জামান বাবু (৩২) ও একই উপজেলার ইব্রাহিম খলিলের ছেলে মো. মনোয়ার হোসেন (৩৩)।

জানা গেছে, ঢাকার চকবাজারের মেসার্স নুর এন্টারপ্রাইজের ফয়েজ নামের এক আমদানীকারক ভারত থেকে বুড়িমারী স্থলবন্দর দিয়ে গত ৬ মে (সোমবার) ১৮ হাজার কেজি চায়না ক্লেমন পাউডার আমদানী করেন। ওই দিন বন্দর অফিসের সার্ভার ডাউন থাকায় পরদিন ৭মে কাস্টম এবং বন্দরের সকল কার্যক্রম শেষ করা হয়।  রাতে সিএন্ডএফ ব্যবসায়ী তুহিনুজ্জামান বাবু এবং আলী হোসেন আলিফ ঢাকা মেট্রো ট-২৪০৪৯৬ নং এর একটি ট্রাকে আমদানিকৃত চায়না ক্লেমন পাউডার লোড করে আমদানীকারকের নিকট পাঠান। কিন্ত দীর্ঘ কয়েকদিনেও সেই পণ্য বুঝে না পাওয়ায় থানায় মামলা করেন আমদানীকারক ফয়েজ। ফয়েজ দাবী করেন এর আগে তিনি তুহিনুজ্জামান বাবু ও আলী হোসেন আলিফের নিকট নগদের মাধ্যমে ৬০ হাজার টাকা দেন। পরে আবু আলম নামে এক ব্যক্তি পণ্য পরিবহণের জন্য উল্লেখিত নাম্বারের যে ট্রাকে পণ্য পাঠান সেই ট্রাকের ড্রাইভারের মোবাইল নাম্বার সহ জহুরুল নামের একজনের কথা বলেন। ট্রাক চালক জহুরুল ট্রাকের ভাড়া বাবদ আমদানিকারক ফয়েজের নিকট থেকে ৪০ হাজার টাকা বিকাশের মাধ্যমে  গ্রহণ করেন।  এতে সন্দেহ হলে প্রদানকৃত ট্রাকের লোকেশন মুন্সিগঞ্জ এলাকায় দেখা যায়। চালক আমদানিকারককে জানায় উল্লেখিত নাম্বারের  ট্রাক কখনই বুড়িমারীতে যায়নি। পরে উল্লেখিত ব্যক্তিদের সাথে যোগাযোগ করলে তারা  তালবাহানা শুরু করেন।

এ বিষয়ে আমদানীকারক ফয়েজের সাথে কথা বলার চেষ্টা করলে তিনি কোন বক্তব্য দিতে রাজি হননি। অভিযানে আসা গাজীপুর মেট্রো ডিবির এসআই তানভীর তুষার বলেন, এঘটনায় গাজীপুর ডিবিতে একটি মামলা পর অভিযান চালিয়ে মালামাল উদ্ধার করেছি এ বিষয়ে উদ্বোধন কর্তৃপক্ষ ব্রিফিং করবেন।

হাতীবান্ধা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাইফুল ইসলাম বলেন, মামলার সংক্রান্ত বিষয়ে গাজীপুর মেট্রো ডিবি পুলিশের একটি টিম হাতীবান্ধার বড়খাতায় অভিযান চালিয়ে একটি গোডাউন থেকে মালামাল উদ্ধার করেছেন। মালামাল গুলো হাতীবান্ধায় থানায় তালিকা ভক্ত হয়।

পাটগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি আবু সাঈদ চৌধুরী বলেন, এ বিষয়ে পাটগ্রাম থানায় একটি মামলা হয়েছে এ মামলায় দুজন আটক করা হয়েছে।

– লালমনিরহাট বার্তা নিউজ ডেস্ক –