• শনিবার   ২১ মে ২০২২ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ৭ ১৪২৯

  • || ১৮ শাওয়াল ১৪৪৩

সর্বশেষ:
বৈশ্বিক সংকট মোকাবেলায় চার দফা প্রস্তাব দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা করোনায় এক মাস মৃত্যুহীন বাংলাদেশ বিশ্ব মেডিটেশন দিবস আজ ৪৪তম বিসিএস পরীক্ষা নিয়ে যা জানা গেল রংপুরসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে বজ্রসহ বৃষ্টির আভাস

হাতীবান্ধায় জামাত নেতার হামলায় ৯ নৌকার কর্মী আহত

– লালমনিরহাট বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২১ ডিসেম্বর ২০২১  

লালমনিরহাটের হাতীবান্ধায় ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে নৌকার ৯ জন কর্মীকে মারধর করেছে জামাত নেতা ও স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী (ঘোড়া) হাবিবুর রহমান সাতা ও তার লোকজন। আহতরা বর্তমানে হাতীবান্ধা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তাদের মধ্যে একজনের হাত ভেঙে গেছে।

সোমবার রাত সাড়ে আটটার দিকে উপজেলার টংভাঙ্গা ইউনিয়নের গেন্দুকুড়ি এলাকায় এই মারধরের ঘটনা ঘটেছে।

আহতরা হলেন উপজেলার টংভাঙ্গা এলাকার মজিবর রহমান (৫৫), সজিব (২১), অলক রায় (২০), আলামিন হোসেন (২২), সাইফুল ইসলাম (২৯), দবিয়ার রহমান (২৪), মতিন (২৫) সেলিম (২২) ও এনামুল (২৫)। এদের মধ্যে মুজিবুর রহমানের হাত ভেঙে গেছে।

জানা গেছে, সোমবার রাতে টংভাঙ্গা ইউনিয়নের গেন্দুকুড়ি এলাকায় নির্বাচনী প্রচার প্রচারণা চালাতে যায় নৌকা প্রার্থী সেলিম হোসেনের কর্মীরা। এ সময় জামায়াত নেতা ও স্বতন্ত্র প্রার্থী হাবিবুর রহমান তাদেরকে বাধা দেয়। এর একপর্যায়ে উভয়ের মধ্যে বাকবিতণ্ডা শুরু হয়। এরপর হাবিবুর রহমান সাতা ও তার লোকজন নৌকা কর্মীর ওপর হামলা চালায়। এতে ৯ জন গুরুতর আহত হয়। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে।

আহত মজিবুর রহমান বলেন, সাতা ও তার লোকজন আমাদের মারধর করেছে। তাদের মারধরের কারণে আমার হাত ভেঙে গেছে আমি এর বিচার চাই।

আহত দবিঢয়ার রহমান বলেন, সাতা ও তার লোকজন লিল্লাহি তাকবীর, আল্লাহু আকবার স্লোগান দিয়ে আমাদের উপর হামলা করে। আমাকে এলোপাতাড়ি মারধর করে। আমি আর কিছু বলতে পারি না। চোখ খুলে দেখি আমি হাসপাতালে।

এ বিষয়ে নৌকা মার্কার প্রার্থী সেলিম হোসেন বলেন, জামায়াত নেতা হাবিবুর রহমান সাতা আমাদের লোকজনদের ওপর হামলা করেছে। তারা হাসপাতলে আছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

এ বিষয়ে জামায়াত নেতা ও স্বতন্ত্র প্রার্থী (ঘোড়া) হাবিবুর রহমান সাতা বলেন, আমরা তাদের মারধর করিনি। তারাই আমাদের লোকজনদেরকে মারধর করছে।

এ বিষয়ে হাতীবান্ধা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগে কর্মরত চিকিৎসক মারর্জিয়া বলেন, আহতদের মধ্যে একজনের হাত ভেঙে গেছে। তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়েছে।

এ বিষয়ে হাতীবান্ধা থানার ওসি (তদন্ত) রফিকুল ইসলাম বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করা হয়। এ বিষয়ে এখন পর্যন্ত কোনো লিখিত অভিযোগ পাওয়া যায়নি। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

– লালমনিরহাট বার্তা নিউজ ডেস্ক –