• মঙ্গলবার   ০৩ আগস্ট ২০২১ ||

  • শ্রাবণ ১৮ ১৪২৮

  • || ২৩ জ্বিলহজ্জ ১৪৪২

সর্বশেষ:
টিকার আওতায় ১ কোটি ৩৪ লাখ মানুষ, অপেক্ষায় দেড় কোটি ২ আগস্ট ১৯৭১: ‘মুজিবের ফাঁসি হলে একই দড়িতে ঝুলবে পাকিস্তান’ প্রণোদনার জন্য স্মার্ট কার্ড পাবেন দেড় কোটির বেশি কৃষক বঙ্গবন্ধু হত্যার ষড়যন্ত্রকারীদের মুখোশ উন্মোচনের প্রত্যাশা ভালোবাসার বৃষ্টিতে ভিজলো ‘একটি দেশের জন্য গান’

দায়িত্বরত অবস্থাতেই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন কনস্টেবল আশরাফুল

– লালমনিরহাট বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২৩ জুন ২০২১  

প্রতিদিনের মতো পেশাগত দায়িত্ব পালনে সহকর্মীদের সঙ্গে বের হয়েছিলেন আশরাফুল আলম। গাড়িতে করে ঘুরে ঘুরে খেয়াল করছিলেন নগরের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি। মানুষের নিরাপত্তা সেবায় নিয়োজিত আশরাফুল হঠাৎ সেই গাড়িতে অসুস্থ হয়ে পড়েন। সহকর্মীরা সঙ্গে সঙ্গে তার পায়ের জুতা খুলে ফেলেন, শুরু করেন বাতাস দিতে। 

সবাই ভেবেছিলেন আষাঢ়ের ভ্যাপসা গরম সহ্য করতে না পেরে জ্ঞান হারিয়েছে। কিন্তু না, দায়িত্বরত অবস্থাতেই বুক চেপে ধরে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন আশরাফুল। এবার আর কাজ শেষে তার থানায় ফেরা হয়নি।

গতকাল মঙ্গলবার (২২ জুন) রাতে নগরের নিউ ইঞ্জিনিয়ারপাড়ায় দায়িত্বে থাকা অবস্থায় পুলিশের গাড়িতে অসুস্থ হয়ে পড়েন কনস্টেবল আশরাফুল আলম। সহকর্মীরা তাকে দ্রুত রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মস্তিস্কে রক্তক্ষরণ জনিত কারণে ওই পুলিশ সদস্যের মৃত্যু হয়েছে।

চোখের সামনে একজন হাস্যোজ্জ্বল সহকর্মীর হঠাৎ মৃত্যুর যন্ত্রণা দেখেছেন ওই পুলিশভ্যানে থাকা কোতোয়ালি থানা পুলিশের পরিদর্শক (এসআই) মজনু মিয়া। বেদনার এ সংবাদ তিনি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছবিসহ পোস্ট করে জানিয়ে দেন অন্যদেরও। তবে সহকর্মীর আকস্মিক মৃত্যুতে মনোবল হারালেও দায়িত্বপালনে অবিচল ও দৃঢ় ছিলেন সেই পুলিশভ্যানে থাকা সকলে। সারারাত জেগেই টহল দিয়েছেন। তখন ওই ভ্যানে আশরাফুলের নিথর দেহ না থাকলেও পড়ে ছিল একজোড়া জুতা। যা দেখে বিস্মিত হয়ে তাকিয়ে ছিলেন সবাই।

আশরাফুল আলম রংপুর নগরীর সাতগাড়া মিস্ত্রিপাড়া এলাকায় ভাড়া থাকতেন। তার গ্রামের বাড়ি লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলার সিন্দুনায়। তার বাবা মরহুম বীরমুক্তিযোদ্ধা হাজী আফজাল হোসেন।

মৃত্যুকালে আশরাফুলের বয়স হয়েছিল চল্লিশ বছর। তিনি স্ত্রী আবিদা সুলতানা আইরিন ও একমাত্র ছেলে আরিফুজ্জামান উৎসসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। এসএসসি পাস করে ২০০১ সালের ২ জানুয়ারিতে বাংলাদেশ পুলিশে যোগদান করেন। শুরুতে তিনি ঢাকার গাজীপুরে অটো ডিজেল মেকানিক ফোর্সে প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেন। এরপর কুড়িগ্রাম জেলা, বান্দরবান পার্বত্য জেলা, রংপুর জেলা এবং টুরিস্ট পুলিশে ছিলেন। ২০১৮ সালে রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশে সংযুক্ত হন।
 
মঙ্গলবার রাতেই রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ লাইন মাঠে মরহুমের প্রথম জানাজার নামাজ শেষে পরিবারের কাছে মরদেহ হস্তান্তর করা হয়। বুধবার (২৩ জুন) বেলা সাড়ে ১১টায় গ্রামের বাড়ি লালমনিরহাটের হাতীবান্ধায় লোকমান হোসেন উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে জানাজা শেষে স্থানীয় কবরস্থানে তার দাফনকার্য সম্পন্ন করা হয়।

সহকর্মীর হঠাৎ প্রস্থানেও দায়িত্বপালনে পিছপা না হওয়া কোতোয়ালি থানার টহলরত সেই মোবাইল টিম প্রসংশায় ভাসছেন। আশরাফুল আলমের নিথর দেহ নিয়ে যখন গ্রামের বাড়ির পথে তার পরিবার তখন রংপুর নগরের মানুষের নিরাপত্তা ও আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে সজাগ ছিল এসআই মজনু মিয়ার নেতৃত্বে থাকা মোবাইল টিমও। 

তাদের অবিচল দায়িত্ব পালনের প্রসংশা করে রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের সিনিয়র সহকারী কমিশনার ফারুক আহমেদও তার নিজের ফেসবুক আইডিতে পোস্ট করেছেন।

সেখানে তিনি লিখেছেন, গতরাতে যখন রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের কোতোয়ালি থানার টহলরত মোবাইল টিমের ছবি তুলছিলাম, তার কয়েক ঘণ্টা আগেই (২২ জুন) তাদের সহকর্মী কনস্টেবল আশরাফুল ইসলাম রাত্রীকালীন মোবাইল ডিউটিরত অবস্থায় হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। তবুও দায়িত্ব পালনে অবিচল ও দৃঢ় প্রতিজ্ঞ তারা।

গাড়িতে পরপারে চলে যাওয়া মরহুম কনস্টেবলের বুটজোড়া পড়ে রয়েছে। মনে দগদগ করছে একটু আগে তার সঙ্গে ডিউটি করার তরতাজা স্মৃতি। তবু এ সবকিছুকে পাশ কাটিয়ে নির্বিকার চিত্তে ডিউটি করছে তারা। মানুষের জান ও মাল রক্ষা করার গুরু দায়িত্ব তাদের কাঁধে। তাই সহকর্মী হারানোর বেদনাতেও তাদের টলতে নেই, আবেগ প্রকাশ করতে নেই। তাই সবকিছু ছাপিয়ে একনিষ্ঠ চিত্তে দায়িত্ব পালন করা যায়।

কনস্টেবল আশরাফুল ইসলামের কর্তব্যরত অবস্থায় মৃত্যুর সংবাদটি যেন বুকের ভেতরে শেলের মতো আঘাত করে। কবে না জানি আমাদেরও এ পরিণতি হয়। আল্লাহ ভরসা!!

এদিকে সহকর্মীর এমন চলে যাওয়াতে শোকাহত রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ পরিবার। শোকে আচ্ছন্ন আশরাফুলের স্ত্রী-সন্তানসহ গ্রামের মানুষরাও। আশরাফুল আলমের অকাল মৃত্যুতে শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে শোক প্রকাশ করেছেন মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মোহাম্মদ আবদুল আলীম মাহমুদ।

– লালমনিরহাট বার্তা নিউজ ডেস্ক –