• শনিবার   ২১ মে ২০২২ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ৭ ১৪২৯

  • || ১৮ শাওয়াল ১৪৪৩

সর্বশেষ:
বৈশ্বিক সংকট মোকাবেলায় চার দফা প্রস্তাব দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা করোনায় এক মাস মৃত্যুহীন বাংলাদেশ বিশ্ব মেডিটেশন দিবস আজ ৪৪তম বিসিএস পরীক্ষা নিয়ে যা জানা গেল রংপুরসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে বজ্রসহ বৃষ্টির আভাস

‘সরকার বঙ্গবন্ধুর দেখানো পথ ধরেই এগোচ্ছে’

– লালমনিরহাট বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ১৩ আগস্ট ২০২০  

‘শেখ হাসিনার সরকার বঙ্গবন্ধুর দেখানো পথ ধরেই এগোচ্ছে। বাংলাদেশ যে সমৃদ্ধির দিকে এগিয়ে যাচ্ছে, সারা বিশ্বে তা একটি রোল মডেল বলে জানিয়েছেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন। 

তিনি বলেন- শেখ হাসিনার সরকারের সব সেবা, সুফল জনগণ ভোগ করছে। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ ও নেতৃত্বে এসব কাজকে সামনে এগিয়ে নেওয়া হচ্ছে। গতকাল বুধবার একান্ত সাক্ষাৎকারে তিনি এ কথা জানান।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘নতুন প্রজন্মের কাছে বঙ্গবন্ধুকে তুলে ধরা, বঙ্গবন্ধুর অবদানকে তুলে ধরা, বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে ধারণ করে বাংলাদেশকে এগিয়ে নেওয়া ইত্যাদি কর্মযজ্ঞের মধ্য দিয়ে জনপ্রশাসন প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছে।’ তিনি বলেন, ‘উপজেলা অফিসগুলোয় বঙ্গবন্ধু কর্নার তৈরির উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। বঙ্গবন্ধু কর্নার থেকে জাতির জনক সম্পর্কে জানা, জাতির জনকের আদর্শকে হৃদয়ে ধারণ করার ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। সেখানে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে নানা ধরনের বই, ইতিহাস নিয়ে লেখা বই, বঙ্গবন্ধুর বক্তব্য-ভাষণ ইত্যাদি রাখা হবে।’

জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী বলেন, “মুজিববর্ষ ঘোষণার পর আমাদের ব্যাপক পরিকল্পনা ছিল, কিন্তু কভিড-১৯ পরিস্থিতির কারণে সেভাবে কিছু করতে পারিনি। কারণ কভিড-১৯ পরিস্থিতিতে পৃথিবীজুড়েই সরকারগুলোকে ভিন্নভাবে কাজ করতে হচ্ছে। মানুষের জীবনযাত্রার ধরনও পরিবর্তন হয়ে গেছে। তার পরও জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে মুজিববর্ষ ঘিরে নানা ধরনের পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। ‘জনমুখী জনপ্রশাসন’, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যে রূপকল্প ছিল, সেটি বর্তমান সরকারের রূপকল্পে পরিণত হয়েছে। জনমুখী জনপ্রশাসন অর্থাৎ জনপ্রশাসনের সেবা সাধারণ মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছে দেওয়া। মুজিববর্ষে সরকারের রূপকল্প অনুযায়ী আমরা সব কাজ বাস্তবায়নের পাশাপাশি জনপ্রশাসনের পক্ষ থেকে সাধারণ মানুষকে তার প্রত্যাশিত সেবাটি পৌঁছে দেওয়ার কাজ করে যাচ্ছি।”

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘করোনা হানা দেওয়ার পর আমাদের মাঠ প্রশাসন আন্তরিকতার সঙ্গে, ঝুঁকি নিয়ে কাজ করছে। অনেকে আক্রান্ত হলেও মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তারা মানুষকে সচেতন করা, সাধারণ ছুটির সময় মানুষের ঘরে ঘরে খাবার পৌঁছে দেওয়া, জনপ্রতিনিধিদের সঙ্গে সমন্বিতভাবে এই কাজগুলো করেছেন। মানুষকে এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় না যেতে উৎসাহিত করা, জনসমাগম এড়িয়ে চলা, করোনা সংক্রমণ যাতে না ছড়ায় এই চ্যালেঞ্জগুলো ছিল। জনপ্রশাসনের মাঠ পর্যায়ের কর্মীরা এসব কাজে সফলভাবে তাদের দায়িত্ব পালন করেছেন।’ 

– লালমনিরহাট বার্তা নিউজ ডেস্ক –