• বুধবার   ২৫ মে ২০২২ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১১ ১৪২৯

  • || ২২ শাওয়াল ১৪৪৩

সর্বশেষ:
জাতীয় কবি কাজী নজরুলের ১২৩তম জন্মজয়ন্তী আজ সারাদেশে তাপমাত্রা কমতে পারে দেশীয় পণ্য নিশ্চিত করতে শুল্ক বসল দুই শতাধিক পণ্যে ভোটার তালিকা হালনাগাদে শিক্ষকদের সহায়তা করার নির্দেশ নজরুলের সৃজনশীল কর্ম বিশ্ব সাহিত্যেও বিরল

`দুর্নীতিমুক্ত সমাজ গড়াই সরকারের মূল উদ্দেশ্য`   

– লালমনিরহাট বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২৭ জানুয়ারি ২০২২  

অর্থনৈতিক উন্নয়ন, দারিদ্র বিমোচন ও দুর্নীতিমুক্ত সমাজ গঠনের পথ সুগম করাই বর্তমান সরকারের মূল উদ্দেশ্য বলে জানিয়েছেন নৌ পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী। বৃহস্পতিবার (২৭ জানুয়ারি) বাংলাদেশ শিপিং কর্পোরেশন এর ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

নৌ প্রতিমন্ত্রী বলেন, আন্তর্জাতিক নৌপথের নিরাপদ ও দক্ষ শিপিং সেবা প্রদান করা এবং বাংলাদেশের সিংহভাগ আমদানি ও রফতানি পণ্য নিজস্ব জাহাজে পরিবহনের উদ্দেশ্যে ১৯৭২ সালে বাংলাদেশ শিপিং কর্পোরেশন প্রতিষ্ঠা করা হয়। স্বাধীন বাংলাদেশে একটি শক্তিশালী নৌ বাণিজ্যে সহায়ক পরিবহন নেটওয়ার্কের ভিত গড়ে তোলার লক্ষ্যে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়কে সরাসরি তার অধিনে রেখেছিলেন। কর্পোরেশন প্রতিষ্ঠার মাত্র চার মাসের মাথায় বাংলাদেশের প্রথম সমুদ্রগামী জাহাজ বাংলার দূত এর পরপরই বাংলার সম্পদ নামে অপর একটি জাহাজ বাংলাদেশ শিপিং কর্পোরেশনের বহরে সংযুক্ত হয়। বঙ্গবন্ধুর সুচিন্তিত দিকনির্দেশনা এবং তার জীবদ্দশায় ১৯৭৪ সালের মধ্যেই ২৬টি সমুদ্রগামী জাহাজ বাংলাদেশ শিপিং কর্পোরেশনের বহরে সংযোজনের ব্যবস্থা করেন।

তিনি বলেন, বাংলাদেশে সুশাসন প্রতিষ্ঠা করা, সকল কাজে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিতকরণ। অর্থনৈতিক উন্নয়ন, দারিদ্র বিমোচন ও দুর্নীতিমুক্ত সমাজ গঠনের পথ সুগম করাই বর্তমান সরকারের মূল উদ্দেশ্য। তাই শেয়ার হোল্ডারদের যেকোনো সমালোচনা ও পরামর্শ আমাদের কাম্য। 

খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা মানানীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার নির্দেশনার আলোকে এবং তার বলিষ্ঠ নেতৃত্বে বর্তমান গণতান্ত্রিক সরকার কর্তৃক সামগ্রিক উন্নয়নের ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশ শিপিং কর্পোরেশনের নানাবিধ পদক্ষে নেওয়া হয়েছে। ইতোমধ্যেই বাংলাদেশ শিপিং কর্পোরেশনের বহরে নতুন ছয়টি জাহাজ যুক্ত হয়েছে। আরো ছয়টি জাহাজ সংগ্রহের কার্যক্রম চলমান রয়েছে। সরকার বিদ্যুৎখাতের সার্বিক উন্নয়নের লক্ষ্যে কয়েকটি কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ প্রকল্প স্থাপনের কার্যক্রম গ্রহণ করেছে এবং তা বাস্তবায়ন হয়েছে। এছাড়া দেশের জ্বালানি সংকট নিরসনের জন্য সরকার কর্তৃক তরলীকৃত প্রাকৃতিক গ্যাস আমদানির সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। এই লক্ষ্যে কক্সবাজারের মাতারবাড়িতে ভাসমান এলএমজি টার্মিনাল নির্মাণ হচ্ছে।

এ সময় প্রতিমন্ত্রী দেশের অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি অর্জন এবং শিপিং কর্পোরেশনের উন্নয়নে সরকারের গৃহীত আরো নানা পদক্ষেপ তুলে ধরার পাশাপাশি সেসব বিষয়ে আলোচনা করেন।

– লালমনিরহাট বার্তা নিউজ ডেস্ক –