• শুক্রবার   ২০ মে ২০২২ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ৫ ১৪২৯

  • || ১৭ শাওয়াল ১৪৪৩

সর্বশেষ:
শ্বশুরবাড়িতে জামাইয়ের গলাকাটা লাশ ভুরুঙ্গামারীতে কালবৈশাখী তাণ্ডবে দুই শতাধিক বসতবাড়ি লণ্ডভণ্ড রংপুর চিড়িয়াখানা থেকে তিন হরিণ বিক্রি

বাঙালির অস্তিত্বে বারবার ফিরে আসবে শেখ মুজিব

– লালমনিরহাট বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ১৭ জানুয়ারি ২০২২  

আজকের ডিজিটাল বাংলাদেশের ভিত্তিও রচিত হয়েছে বঙ্গবন্ধুর সাড়ে তিন বছরের শাসনামলেই। তাই যতদিন বাংলা ভাষা থাকবে, বাংলাদেশ থাকবে, বাঙালি সংস্কৃতি থাকবে; ততদিন এই জাতির ধমনীতে প্রবাহিত হবে ‘জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু’র জয়ধ্বনি।

বিশ্বের বুকে শেখ মুজিব একজন কিংবদন্তি হিসেবে বেঁচে আছেন, বেঁচে থাকবেন। বঙ্গবন্ধুর মৃত্যুর সংবাদ শুনে স্তম্ভিত ব্রিটিশ লর্ড ফেন্যার ব্রোকওয়ে বলেন, 'শেখ মুজিব জর্জ ওয়াশিংটন, গান্ধী এবং দ্য ভ্যালেরার থেকেও মহান নেতা ছিলেন।'

পশ্চিম জার্মানির পত্রিকায় বলা হয়, 'বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবকে চতুর্দশ লুইয়ের সঙ্গে তুলনা করা যায়। তিনি জনগণের কাছে এত জনপ্রিয় ছিলেন যে, লুইয়ের মতো তিনি এ দাবি করতে পারেন, আমিই রাষ্ট্র।'

এদিকে বিবিসির জরিপ অনুসারে, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। তার দেওয়া ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষটিকে বিশ্ব প্রামাণ্যের দলিল হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে জাতিসংঘ। ইউরোপ-আমেরিকাসহ পৃথিবীর ইতিহাসের শ্রেষ্ঠ একশ ভাষণের মধ্যে অন্যতম একটি বলে অভিহিত করা হয় বঙ্গবন্ধুর সেই ভাষণকে। মূলত, শেখ মুজিবুর রহমান হলেন সেই বিরল ব্যক্তিত্ব, যিনি হাজার মাইল দূরের জেলখানায় বন্দি থেকেও একটি জাতিকে মুক্তির জন্য মরণপণ যুদ্ধে লিপ্ত থাকতে অনুপ্রেরণা জুগিয়েছেন।

একারণে ফ্রান্সের সাবেক প্রেসিডেন্ট ১৯৯০ সালে বাংলাদেশ সফরে এসে বলেছিলেন, 'নেপালিয়ন যা পারেনি, মুজিব তা করে দেখিয়েছেন। শুধু তার নামের জ্যোতির্ময় আলোকে অনুপ্রাণিত হয়ে একটি জাতি বিশ্বের মানচিত্র বদলে দিয়েছে। সমগ্র মানব জাতির ইতিহাসে এমন দ্বিতীয় কোনো বিস্ময়কর ঘটনা কেউ কোনদিন, কোথাও প্রত্যক্ষ করেনি।'

বঙ্গবন্ধু শুধু একটি রাষ্ট্রই প্রতিষ্ঠা করেননি; তিনি একটি জাতির হাজার বছরের ঐতিহ্য ও সংস্কৃতিকে সমাধির হাত থেকে রক্ষা করে নতুন প্রাণ দিয়েছেন; তিনি একটি জাতির জন্য সার্বভৌম রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার পর সেই জাতিকে বিশ্বের বুকে নেতা হিসেবে প্রতিষ্ঠার পরিকল্পনা গ্রহণ করেছেন। বঙ্গবন্ধু এবং বাংলাদেশ একে অপরের পরিপূরক। বাংলা ভাষা থেকে বাংলাদেশের স্বাধীনতা, এরপর বিশ্বের বুকে মাথা উঁচু করে দাঁড়ানোর নতুন সংগ্রাম, সর্বক্ষেত্রেই বঙ্গবন্ধুর নাম ঘুরে ফিরে আসবেই।

– লালমনিরহাট বার্তা নিউজ ডেস্ক –