• শনিবার ২০ এপ্রিল ২০২৪ ||

  • বৈশাখ ৭ ১৪৩১

  • || ১০ শাওয়াল ১৪৪৫

সর্বশেষ:
বাংলাদেশের জাতীয় পতাকার অন্যতম নকশাকার বীর মুক্তিযোদ্ধা শিব নারায়ণ দাস, আজ ৭৮ বছর বয়সে মৃত্যুবরণ করেছেন। বন্যায় দুবাই এবং ওমানে বাংলাদেশীসহ ২১ জনের মৃত্যু। আন্তর্জাতিক বাজারে আবারও বাড়ল জ্বালানি তেল ও স্বর্ণের দাম। ইসরায়েলের হামলার পর প্রধান দুটি বিমানবন্দরে ফ্লাইট চলাচল শুরু। ইসরায়েল পাল্টা হামলা চালিয়েছে ইরানে।

দেশে সংখ্যালঘু বলতে কিছু নেই, সবার অধিকার সমান: ধর্মপ্রতিমন্ত্রী

– লালমনিরহাট বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২৯ জানুয়ারি ২০২৩  

দেশে সংখ্যালঘু বলতে কিছু নেই, সবার অধিকার সমান: ধর্মপ্রতিমন্ত্রী                    
দেশে সংখ্যালঘু বলতে কিছু নেই, বাঙালি হিসেবে সবার অধিকার সমান বলে মন্তব্য করেছেন ধর্মবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী মো. ফরিদুল হক খান। গতকাল শনিবার (২৮ জানুয়ারি) রাজধানীর পরীবাগে হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের আয়োজনে ‘বঙ্গবন্ধু স্টাডি সেন্টার’ উদ্বোধন ও সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রতিমন্ত্রী এ মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর জীবনাদর্শ ও অসাম্প্রদায়িক চেতনাবোধই আমাদের জীবনচলার পথনকশা। বঙ্গবন্ধু আরও বেশি জানার বঙ্গবন্ধু স্টাডি সেন্টার অবশ্যই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। বঙ্গবন্ধুই আমাদের অসাম্প্রদায়িক রাষ্ট্র বাংলাদেশ উপহার দিয়ে গেছেন। তিনি সংবিধানে রাষ্ট্র পরিচালনার অন্যতম মূলনীতি হিসেবে নিরপেক্ষতা সংযোজন করে গেছেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ধর্ম নিরপেক্ষতার মূলনীতি অনুসরণ করে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির পরিবেশ সুনিশ্চিত করতে বর্তমান সরকার কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। সব ধর্মীয় সম্প্রদায়ের কল্যাণে উল্লেখযোগ্য পরিমাণ উন্নয়ন কার্যক্রম বাস্তবায়ন করছে। হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের স্থায়ী আমানত ২১ কোটি টাকা হতে ১০০ কোটি টাকায় উন্নীত করেছে। হিন্দু তীর্থ যাত্রীদের জন্য হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের পক্ষ হতে অনুদান সহায়তা দিয়েছে।

ফরিদুল হক খান বলেন, সবার রক্তের বিনিময়ে বাংলাদেশের স্বাধীনতা অর্জিত হয়েছে। এ দেশে সংখ্যালঘু বলতে কিছু নেই, আমরা সংখ্যালঘু ধারণায় বিশ্বাস করি না। বাঙালি হিসেবে আমাদের সবার অধিকার সমান। আমরা হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের পক্ষ হতে সাম্প্রতিক সময়ে সহিংসতায় ক্ষতিগ্রস্ত প্রতিটি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি, আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করেছি। সরকারের পক্ষ হতে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তি ও পরিবারের পাশে দাঁড়িয়েছি এবং পুনর্বাসনের ব্যবস্থা গ্রহণ করেছি।

তিনি আরও বলেন, সামনে যাতে ধর্মের দোহাই দিয়ে কেউ কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটাতে না পারে সে বিষয়ে জনপ্রতিনিধি, প্রশাসন, রাজনৈতিক, সামাজিক ও ধর্মীয় নেতাদের সজাগ দৃষ্টি রাখতে হবে।

হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের সচিব দিলীপ কুমার ঘোষের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত অনুষ্ঠানে আরও বক্তৃতা করেন হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান-১ নারায়ণ চন্দ্র চন্দ, সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান-২ মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপি, নেত্রকোণা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের ট্রাস্টি বীর মুক্তিযোদ্ধা প্রতিরোধযোদ্ধা অসীত সরকার সজল, ভাইস চেয়ারম্যান সুব্রত পাল, হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের ট্রাস্টি সাবেক সচিব অশোক মাধব রায়, ট্রাস্টি অ্যাডভোকেট ভুপেন্দ্র চন্দ্র ভৌমিক দোলন, ট্রাস্টি অধ্যাপক ড. অসীম সরকার, ট্রাস্টি বীর মুক্তিযোদ্ধা রেখা রাণী গুণ, ট্রাস্টি সাংবাদিক শ্যামল সরকার, ইসকন বাংলাদেশের সাধারণ সম্পাদক শ্রীপাত চারুচন্দ্র ব্রহ্মচারী প্রমুখ।

– লালমনিরহাট বার্তা নিউজ ডেস্ক –