• শুক্রবার   ১২ আগস্ট ২০২২ ||

  • শ্রাবণ ২৭ ১৪২৯

  • || ১২ মুহররম ১৪৪৪

সর্বশেষ:
শোক দিবসের অনুষ্ঠানে মাস্ক-টিকা সনদ বাধ্যতামূলক অর্থনীতিতে স্বস্তির আভাস মিলেছে: গভর্নর সরকারি ওষুধ চুরি করে বিক্রি করলে ১০ বছরের জেল প্রহরীর গলা কাটা মরদেহ, পার্কের মালিকসহ গ্রেপ্তার ৩ আন্তর্জাতিক গণিত প্রতিযোগিতায় ৫ বাংলাদেশি শিক্ষার্থীর অনন্য অর্জন

`‌প্রধানমন্ত্রীর প্রতি প্রকৌশলীদের আস্থা প্রশংসনীয়`  

– লালমনিরহাট বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ১৭ জুলাই ২০২২  

`‌প্রধানমন্ত্রীর প্রতি প্রকৌশলীদের আস্থা প্রশংসনীয়'                                   
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি এদেশের প্রকৌশলীরা যে আস্থা ও বিশ্বাস রেখেছেন তা সত্যিই প্রসংশনীয় বলে মন্তব্য করেছেন পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান।

গতকাল শনিবার বিকেলে ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন, বাংলাদেশ (আইইবি) সদর দফতরের উদ্যোগে ‘Padma Bridge : A Dream Turns into Reality’ শীর্ষক সেমিনার ও পদ্মা সেতু সংশ্লিষ্ট প্যানেল অব এক্সপার্টস, প্রকল্প পরিচালক এবং বাংলাদেশ সেতু কর্তৃপক্ষের সংশ্লিষ্ট ইঞ্জিনিয়ারদের সংবর্ধনা প্রদান অনুষ্ঠানে এ মন্তব্য করেন পরিকল্পনা মন্ত্রী।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, ছোট ছোট কাজগুলোই সামনের বৃহৎ কাজকে পথ দেখাবে। আগামীর বাংলাদেশ গঠনে সুদৃঢ় ভিত্তি প্রস্তর তৈরিতে প্রকৌশলীরা ভূমিকা রাখবে বলে বিশ্বাস করি। 
এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পদ্মা বহুমূখী সেতু প্রকল্পের বিশেষজ্ঞ প্যানেলের প্রধান এবং সাবেক প্রেসিডেন্ট, আইইবি অধ্যাপক ড. ইঞ্জিনিয়ার এম. শামীম জেড বসুনিয়া। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন আইইবির সাধারণ সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার মো. শাহাদাৎ হোসেন (শীবলু)।

সেমিনারের মূল বক্তব্য উপস্থাপন করেন পদ্মা সেতু প্রকল্পের বিশেষজ্ঞ প্যানেলের সদস্য অধ্যাপক ড. ইঞ্জিনিয়ার এম. ফিরোজ আহমেদ। 

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য প্রদান করেন সেতু প্রকল্পের বিশেষজ্ঞ প্যানেলের সদস্য, পানি সম্পদ ও জলবায়ু পরিবর্তন বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ড. ইঞ্জিনিয়ার আইনুন নিশাত, পুরকৌশল বিভাগ, আইইবি চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. ইঞ্জিনিয়ার মুনাজ আহমেদ নূর, বাংলাদেশ অর্থনীতি সমিতির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. মো. আইনুল ইসলাম এবং পদ্মা সেতু নির্মাণ প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক ইঞ্জিনিয়ার মো. শফিকুল ইসলাম। 

এতে ইঞ্জিনিয়ার মো. শফিকুল ইসলাম বলেন, একটা শক্তিশালী টিম না হলে পদ্মা সেতু সম্ভব হতো না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায় খুব দ্রুতই ফাইল সম্পন্ন হতো। অনেকেই আশা ছেড়ে দিয়েছিল, আমরা প্রধানমন্ত্রীর কারণে আশাবাদী হয়ে বাঙালি জাতির স্বপ্ন পূরণ করতে সক্ষম হয়েছি। 

ড. আইনুল ইসলাম বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে আমরা বাংলাদেশ পেয়েছি এবং শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমরা পদ্মা সেতু পেয়েছি। এই পদ্মা সেতু সাহস যুগিয়েছে আগামীর জন্য। 

অধ্যাপক ড. ইঞ্জিনিয়ার মুনাজ আহমেদ নূর বলেন, পদ্মা সেতু আমাদের আবেগের প্রতীক।পদ্মা সেতুতে যুক্ত সকল প্রকৌশলীরা সৌভাগ্যবান। ইতিহাসের সাক্ষীই নয় বরং নির্মাণকারী হিসেবে ছিলেন। 

অধ্যাপক ড. ইঞ্জিনিয়ার আইনুন নিশাত বলেন, টেন্ডার এবং পরিবেশের যাচাই করার ক্ষেত্রে প্রধানমন্ত্রী যে দৃঢ়তা দেখিয়েছেন তা সত্যিই প্রসংশনীয়। বিশ্বব্যাংক যতদিন পদ্মা সেতুর সাথে ছিল ততদিন পদ্মা সেতুতে বাধা হয়েছিল। 

অধ্যাপক ড. ইঞ্জিনিয়ার এম. শামীম জেড বসুনিয়া বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ ছিল এই পদ্মা সেতু যেটা করে উনি সফল হয়েছেন।

– লালমনিরহাট বার্তা নিউজ ডেস্ক –