• শনিবার ১৫ জুন ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ১ ১৪৩১

  • || ০৭ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

রোকেয়া দিবস: বেরোবিতে রোকেয়ার ম্যূরাল স্থাপনের দাবি

– লালমনিরহাট বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ৯ ডিসেম্বর ২০২৩  

রংপুরের বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় (বেরোবি) ২০০৮ সালে রংপর বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে যাত্রা শুরু করলেও ২০০৯ সালে বাঙালি নারী জাগরণের অগ্রদূত বেগম রোকেয়ার নামানুসারে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম রাখা হয় বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়। যা বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উদ্বোধন করেন। কিন্তু প্রতিষ্ঠার ১৫ বছর পার করলেও তার কোনো স্মৃতিচিহ্ন নেই এই বিশ্ববিদ্যালয়ে।

প্রতিবছর ৯ ডিসেম্বর রোকেয়া দিবসে অস্থায়ী ম্যুরালে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করা হয়। এরপর ঘোষণা আসে শিগগিরই বেগম রোকেয়ার ম্যুরাল তৈরি করা হবে। কিন্তু তা আর আলোর মুখ দেখে না। তবে বর্তমান উপাচার্য অধ্যাপক ড. হাসিবুর রশীদ যোগদানের পর রোকেয়া কে বিশদভাবে জানার জন্য প্রতি বছর ‘রোকেয়া পাঠ’ প্রকাশিত করে আসছে। যা শিক্ষক শিক্ষার্থীদের মাঝে রোকেয়া কে জানার খোরাক যোগাচ্ছে। তবে শিক্ষার্থীদের দাবি খুব দ্রুত সময়ে ক্যাম্পাসে রোকেয়ার ম্যুরাল স্থাপন।

গণিত বিভাগের শিক্ষার্থী সাথী বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ে বেগম রোকেয়ার কোন ম্যুরাল বা স্মৃতিচিহ্ন নেই। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে অনুরোধ দ্রুত যেন ক্যাম্পাসে রোকেয়ার ম্যূরাল স্থাপন করা হয়।

ম্যানেজমেন্ট ইনফরমেশন সিস্টেম বিভাগের শিক্ষার্থী প্রিতম দেব নাথ বলেন, নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়সহ অনেক বিশ্ববিদ্যালয় আছে যাদের নাম অনুসারে ম্যুরাল আছে। এইগুলো বিশ্ববিদ্যালয়ের সৌন্দর্য যেমন বাড়ায় পাশাপাশি নতুন প্রজন্মের শিক্ষার্থীদের মধ্যে তাদের সম্পর্কে জানার বা তাদের অনুকরণ করার আগ্রহ বাড়ে। কিন্তু আমাদের বিশ্ববিদ্যালয় বেগম রোকেয়ার নামে করা হলও তার কোনো ম্যুরাল নেই। যা খুবই দুঃখজনক। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী হিসেবে আমাদের চাওয়া প্রশাসন যাতে এই বিষয়টি বিবেচনা করেন।

বর্তমান উপাচার্য অধ্যাপক ড. হাসিবুর রশীদ ক্যাম্পাসে রোকেয়ার ম্যুরাল স্থাপনে যথেষ্ট আন্তুরিক বলে জানিয়েছেন শিক্ষক নেতারা। এই বিষয়ে শিক্ষক সমিতির সভাপতি ও রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের বিভাগীয় প্রধান শরিফুল ইসলাম বলেন, আমাদের বিশ্ববিদ্যালয় ১৫ বছর পেরিয়ে ১৬ বছরে পদার্পণ করেছে। সেখানে অবশ্যই বেগম রোকেয়ার ম্যুরাল থাকা উচিত। বর্তমান প্রশাসন যথেষ্ট আন্তরিক আশা করি তারা এই বিষয়টা দেখবেন।

এ বিষয়ে উপাচার্য অধ্যাপক ড. হাসিবুর রশীদ বলেন, রোকেয়ার ম্যুরাল নির্মাণের বিষয়ে আমাদের আন্তরিকতা আছে। সরকারের আর্থিক কৃচ্ছতা সাধন নীতির কারণে বাজেট সংকুলান হয়নি। যতদ্রুত সম্ভব বেগম রোকেয়ার ম্যুরাল নির্মাণ করা হবে।

– লালমনিরহাট বার্তা নিউজ ডেস্ক –