• শনিবার   ২১ মে ২০২২ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ৭ ১৪২৯

  • || ১৮ শাওয়াল ১৪৪৩

সর্বশেষ:
বৈশ্বিক সংকট মোকাবেলায় চার দফা প্রস্তাব দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা করোনায় এক মাস মৃত্যুহীন বাংলাদেশ বিশ্ব মেডিটেশন দিবস আজ ৪৪তম বিসিএস পরীক্ষা নিয়ে যা জানা গেল রংপুরসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে বজ্রসহ বৃষ্টির আভাস

লালমনিরহাটে ১৭০০ অসহায়কে কম্বল দিল এসএসসি ২০০২ ব্যাচ

– লালমনিরহাট বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ১৯ জানুয়ারি ২০২২  

থাকেন ঝুপড়ি ঘরে। কোনো রকম পাতলা কাপড় গায়ে দিয়ে প্রচণ্ড শীতে রাত কাটান। লজ্জায় কখনো কারো কাছে হাত পাতেননি তিনি। কারণ তার কাছে ভিক্ষার চেয়ে সম্মান অনেক বড়। বলছি লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলার দলগ্রামের শীখাতা গ্রামের ৮০ বছরের বৃদ্ধা কল্যানী রানী রায়ের কথা।

মঙ্গলবার (১৮ জানুয়ারি) বিকেলে উপজেলার দলগ্রাম ও চন্দ্রপুর ইউনিয়নে কল্যানী রানী রায়ের মতো এমন ১ হাজার ৭০০ এতিম, প্রতিবন্ধী, গরিব ও অসহায় মানুষের মাঝে কম্বল বিতরণ করে ফেসবুকভিত্তিক গ্রুপ ‘এসএসসি ২০০২ এবং এইচএসসি ২০০৪ বাংলাদেশ’।

পঞ্চাশোর্ধ্ব ইসমাইল হোসেন বলেন, ছেলের বয়সী কয়েকজন রাতে একটা কাগজ দিয়ে বলছে মাঠে আসতে। সেই কাগজে এখন কম্বল পাইছি। অনেক উপকার পাইলাম। এই কম্বলে আর শীত লাগবে না। তাদের জন্য অনেক দোয়া রইল। আল্লাহ যেন তাদের আরও দেয়।

গ্রুপ মডারেটর জয়নাল আবেদিন জয়ের নেতৃত্বে কম্বল বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন লালমনিরহাটের পুলিশ সুপার আবিদা সুলতানা। আরও উপস্থিত ছিলেন রংপুর জেলার সহকারী পুলিশ সুপার (সি সার্কেল) আশরাফুল আলম পলাশ। বিশেষ অতিথি অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অপরাধ) আতিকুল হক, কালীগঞ্জ থানার ওসি গোলাম রসুল, চন্দ্রপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম, দলগ্রাম ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ইকবাল হোসেনসহ এসএসসি ২০০২ এবং এইচএসসি ২০০৪ বাংলাদেশ গ্রুপের সদস্যসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।

পুলিশ সুপার আবিদা সুলতানা বলেন, এভাবে শীতার্ত মানুষের পাশে সবাই দাঁড়ালে এই শীতে কারো কষ্টে রাত কাটাতে হবে না। সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে। পুলিশের পক্ষ থেকেও শীতবস্ত্র বিতরণ করা হচ্ছে। যেকোনো বিষয় পুলিশের সহযোগিতা নিতে পুলিশের সদস্যরা প্রস্তুত আছে।

রংপুর জেলার সহকারী পুলিশ সুপার (সি সার্কেল) আশরাফুল আলম পলাশ জানান, এসএসসি ২০০২ এবং এইচএসসি ২০০৪ বাংলাদেশ গ্রুপের একজন সদস্য হতে পেরে গর্বিত। তিনি আগেও এই ইভেন্টের সঙ্গে ছিলেন এবং আগামীতেও এমন মানবিক কল্যাণমূলক কার্যক্রমে যুক্ত থাকবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন। সেই সঙ্গে তিনি সর্বদাই গ্রুপের যেকোনো প্রয়োজনে পাশে থাকবেন বলে জানান।

উল্লেখ্য, ‌সাইলেন্ট স্মাইল ইভেন্টের মাধ্যমে প্রতিবছর রোজার ঈদে অসহায় ও ছিন্নমূল মানুষের মাঝে পোশাক সামগ্রী বিতরণ করা হয়। আর শীতকালে শীতার্ত মানুষের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করা হয় ওয়ার্ম লাভ ইভেন্টের মাধ্যমে। মূলত গ্রুপের সকল সদস্যরাই এই ইভেন্টগুলোতে আর্থিক সহযোগিতা দিয়ে থাকে। শুধু বাংলাদেশ নয় ইউরোপ, আমেরিকা, কাতার, সংযুক্ত আরব আমিরাত, সৌদি আরব, কানাডাসহ বিশ্বের নানা প্রান্তে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা বন্ধুরাই এই গ্রুপের শক্তি, যারা সর্বদাই আর্তমানবতার সেবায় নিয়োজিত।

– লালমনিরহাট বার্তা নিউজ ডেস্ক –