ব্রেকিং:
পাঁচ বিভাগে পাঁচ বার্ন ইউনিট স্থাপনসহ প্রায় ৭ হাজার ৪৪৭ কোটি ৭ লাখ টাকা ব্যয় সম্বলিত ১০ প্রকল্প একনেকে অনুমোদন
  • মঙ্গলবার   ০৭ ডিসেম্বর ২০২১ ||

  • অগ্রাহায়ণ ২৩ ১৪২৮

  • || ০১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩

সর্বশেষ:
ভারতের সঙ্গে বন্ধুত্বের বন্ধন এখন আরো শক্তিশালী: প্রধানমন্ত্রী বাল্যবিয়ে মুক্ত হলো কুড়িগ্রামের রাজারহাট এক কোটি ৬০ লাখ টাকা মূল্যের সাপের বিষ উদ্ধার ধান-চালের বাজার তদারকি জোরদারের নির্দেশ বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক ইউনিট পাচ্ছে ৫ মেডিকেল হাসপাতাল

হিলিতে কমতে শুরু করেছে পেঁয়াজের দাম

– লালমনিরহাট বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ১৮ অক্টোবর ২০২১  

ভারত থেকে নতুন পেঁয়াজ আমদানিতে শুল্ক প্রত্যাহার, বন্দরে ক্রেতা কম এবং অতিরিক্ত গরমের কারণে দিনাজপুরের হিলি বাজারে কমতে শুরু করেছে পেঁয়াজের দাম। গত কয়েকদিনের তুলনায় বাজারে ভালো পেঁয়াজ কেজিতে তিন থেকে চার টাকা কম দামে বিক্রি হচ্ছে। আমদানি-রপ্তানিকারক গ্রুপের নেতাদের দাবি, ভারতীয় পেঁয়াজ আমদানি সচল থাকলে বাজারে দাম আরও কমে যাবে।

হিলি বন্দর সূত্রে জানা যায়, দুর্গাপূজার কারণে ১১ থেকে ১৬ অক্টোবর পর্যন্ত ভারত-বাংলাদেশে পেঁয়াজ আমদানি-রপ্তানি বন্ধ ছিল। তবে রোববার (১৭ অক্টোবর) সকাল থেকে বন্দর আবার সচল হয়। চালুর প্রথম দিনেই ১৮টি ট্রাকে ৪৭৪ মেট্রিক টন পেঁয়াজ আমদানি হয়েছে।

হিলি বাজারের পেঁয়াজ বিক্রেতা মিঠু বলেন, দুর্গাপূজার সময় আমদানি-রপ্তানি বন্ধ থাকলেও দেশি পেঁয়াজের সরবরাহ বেশি থাকায় দাম বাড়েনি। তবে গতকাল থেকে ভারতীয় পেঁয়াজ আমদানির কারণে প্রকারভেদে কেজিতে তিন থেকে চার টাকা কমেছে।

তিনি বলেন, ‘তিনদিন আগে ভালো পেঁয়াজের দাম ছিল ৪৮ থেকে ৫০ টাকা কেজি, যা এখন ৪৫ থেকে ৪৮ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। রোববার ভারত থেকে যে পেঁয়াজ আমদানি হয়েছে তার মধ্যে ভালো ও নষ্ট পেঁয়াজ থাকায় সেগুলো ৪২ থেকে ৪৩ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

এদিকে, বাজারে দেশি পেঁয়াজের দাম কমে যাওয়া এবং ভারতীয় পেঁয়াজের ক্রেতা না থাকায় ভারত থেকে বেশি দামে আমদানি করা পেঁয়াজ নিয়ে বিপাকে পড়েছেন স্থলবন্দরের পেঁয়াজ আমদানিকারকরা। গুদামে পেঁয়াজ বেশি থাকায় ভ্যাপসা গরমে তা নষ্টের আশঙ্কা রয়েছে। হিলি বন্দরের বেশ কয়েকটি গুদাম ঘুরে দেখা গেছে, প্রতিটি গুদামে প্রচুর পরিমাণে পেঁয়াজ রয়েছে।

এর মধ্যেই রোববার থেকে ভারতীয় পেঁয়াজ আমদানি শুরু হয়েছে। খুচরা বাজারে প্রকারভেদে এ পেঁয়াজ তিন থেকে চার টাকা কম দামে বিক্রি হচ্ছে। তবে দেশি পেঁয়াজ পাইকারি বিক্রি হচ্ছে ৫৫ টাকা দরে।

জানতে চাইলে হিলি স্থলবন্দরের আমদানি-রপ্তানিকারক গ্রুপের সভাপতি হারুন উর রশিদ হারুন বলেন, ‘দুর্গাপূজা উপলক্ষে টানা ছয়দিন হিলি বন্দরের আমদানি-রপ্তানি বন্ধ ছিল। বাজার স্থিতিশীল রাখতে এরই মধ্যে সরকার পেঁয়াজের ওপর থেকে শুল্ক প্রত্যাহার করেছে। আমদানি সচল ও দেশি পেঁয়াজ সরবরাহ থাকলে দাম কমে যাবে।

হিলি কাস্টম ডেপুটি কমিশনার কামরুল ইসলাম বলেন, পেঁয়াজের ওপর শুল্ক প্রত্যাহারের প্রজ্ঞাপন হাতে পেয়েছি। রোববার থেকে এটি কার্যকর হয়েছে। আগামী ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত নতুন শুল্কহার বলবৎ থাকবে।

– লালমনিরহাট বার্তা নিউজ ডেস্ক –