• সোমবার   ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ ||

  • আশ্বিন ১১ ১৪২৮

  • || ১৭ সফর ১৪৪৩

সর্বশেষ:
প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে দেওয়া হবে ৮০ লাখ টিকা আবারও জ্বালাও পোড়াও করলে জবাব দিতে প্রস্তুত আ.লীগ করোনায় চার মাসে সর্বনিম্ন মৃত্যু মাদককারবারির ছুরিকাঘাতে নিহত এএসআই’র দাফন সম্পন্ন হরিপুরে কৃষকের মাঝে কৃষি উপকরণ বিতরণ

বাঁচতে চায় ক্যানসারে আক্রান্ত ফরিদা বেগম 

– লালমনিরহাট বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২ আগস্ট ২০২১  

টাকার অভাবে ছয়মাস ধরে চিকিৎসা করাতে পারছেন না ক্যানসার আক্রান্ত ফরিদা বেগম। দিন দিন যন্ত্রণায় বিষণ্ন হয়ে উঠছে ৩৫ বছর বয়সী এ নারীর জীবন। অভাব অনটনের সংসারে রিকশাচালক স্বামী ছাড়া উপার্জনক্ষম আর কেউ নেই। অসুস্থ স্ত্রীর চিকিৎসা করাতে চেষ্টার কমতিও ছিল না। কিন্তু একটা দুর্ঘটনার পর থেকে রিকশা রেখে এখন শয্যাশায়ী ফরিদার স্বামী নজরুল ইসলাম।

অসহায় এ পরিবারটির দিন কাটছে অন্যের সহযোগিতায়। দু-বেলা দু’মেঠো খাবারের ব্যবস্থা হলেও মিলছে না ফরিদার চিকিৎসার অর্থ। এতদিন রিকশা চালিয়ে ও বিভিন্ন জনের কাছ থেকে ধারদেনা করে চিকিৎসা চলেছে। কিন্তু সড়ক দুর্ঘটনায় আহত হবার পর থেকে ভাঙা হাত নিয়ে বাড়িতে শুয়ে বসে থাকা নজরুল ইসলাম এখন তার স্ত্রীর চিকিৎসার অর্থ যোগানে ব্যর্থ।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, রংপুর নগরের ২৪নং ওয়ার্ডের তাঁতীপাড়া এলাকায় থাকেন রিকশাচালক নজরুল ও ফরিদা দম্পতি। তাদের অভাব অনটনের সংসারে ফারদিন ও সিয়াম নামে দুই ছেলে সন্তান রয়েছে। কিন্তু তাদের কেউই পরিবারের হাল ধরার মতো না। ফারদিন নবম শ্রেণিতে শিক্ষাঙ্গন উচ্চ বিদ্যালয়ে এবং সিয়াম তাঁতীপাড়া জামিউল উলুম মাদরাসায় দ্বিতীয় শ্রেণিতে পড়ালেখা করছে।

গ্রামে নিজের জমিজমা না থাকায় নজরুল তার স্ত্রী-সন্তানদের নিয়ে শহরে একটি বাড়িতে ঘর ভাড়া নিয়ে থাকছেন। দিনরাত রিকশা চালিয়ে যা হয় হতো তাই দিয়ে পরিবার, সন্তানদের লেখাপড়া, ঘরভাড়া ও অসুস্থ স্ত্রীর চিকিৎসায় টুকটাক খরচ জোগাতেন। কিন্তু করোনা পরিস্থিতি ও নিজে সড়ক দুর্ঘটনার শিকার হবার পর থেকে সংসার চালাতে হিশমিশ খেতে হচ্ছে নজরুলকে। সঙ্গে ক্যানসার আক্রান্ত স্ত্রীর চিকিৎসার অর্থাভাব কাঁদাচ্ছে।  
 
ফরিদা বেগমের গলায় ক্যানসার ধরা পড়েছে। শুরুতে প্রাথমিক চিকিৎসা হলেও এখন ছয়মাস ধরে পুরোপুরি চিকিৎসা বন্ধ। দরিদ্র এই পরিবার ক্যানসার চিকিৎসার ব্যয়ভার বহন করতে অক্ষম। স্ত্রীর চিকিৎসার জন্য অর্থ যোগানের ব্যবস্থা করার চ্যালেঞ্জের সঙ্গে এখন যোগ হয়েছে বকেয়া ঘরভাড়া পরিশোধের চাপ ও সংসার চালানোর যন্ত্রণা।  

ফরিদার স্বামী নজরুল ইসলাম বলেন, আমার অসুস্থ স্ত্রীর মুখে হাসি নেই। দিন দিন শুকিয়ে যাচ্ছে। ওর (স্ত্রীর) চিন্তায় আমার নিজের মেরুদণ্ড যেন অচল হয়ে পড়েছে। ডাক্তার যখন ক্যানসার আক্রান্তের খবর জানালেন, তখন থেকে আমার পরিবারে দুর্দশা নেমে এসেছে। এরপর পর একটা বিপদ লেগে আছে। জমিজমা, টাকা-পয়সা কিছুই নেই। আমি নিজেও সড়ক দুর্ঘটনায় অসুস্থ হয়ে পড়ে আছি। এখন রিকশা চালিয়ে কি ক্যানসারের চিকিৎসা করা সম্ভব? এটা তো অনেক ধাক্কা। সবার কাছে আমি সহযোগিতা চাই। সরকারের কাছে, সমাজের ধনী ও দানশীল মানুষরা এগিয়ে এলে আমার স্ত্রীকে বাঁচানো সম্ভব।

অশ্রুসিক্ত কণ্ঠে বেঁচে থাকার আহাজারি ক্যানসার আক্রান্ত ফরিদা বেগমের চোখে-মুখে। তিনি বলেন, ‌আমি বাঁচতে চাই। আমার স্বামী-সন্তান পরিবারের মাঝে আবারো সুস্থ হয়ে ফিরে আসতে চাই। মরণঘাতী ক্যানসারে আমার জীবনের সঙ্গে সঙ্গে পরিবারটিও আজ নিঃস্ব। শুধু টাকার অভাবে ছয়মাসের বেশি সময় ধরে কোনো চিকিৎসা করাতে পারছি না। মনে হচ্ছে আমি পরিবারের কাছে একটা বোঝা হয়ে আছি। আমাকে বাঁচানো হোক, আমার খুব ইচ্ছে বেঁচে থাকার।

স্থানীয় প্রতিবেশি বর্ণালী জামান বলেন, পরিবারটি খুবই অসহায়। দীর্ঘদিন ধরে এ এলাকায় ঘর ভাড়া নিয়ে বসবাস করছে। ওই পরিবারের একজনের বছর খানেক আগে ক্যানসারে আক্রান্ত হবার কথা শুনেছি। রিকশাচালক নজরুল ইসলাম খুব ভালো মানুষ, অন্যের কাছে হাত পেতে কিছু চাওয়া দেখেনি। এমন পরিবারের পাশে বৃত্তবানদের এগিয়ে আসা উচিত।

একই এলাকার খোকন মিয়া বলেন, ক্যানসার রোগ তো নিম্ন ও মধ্যবিত্ত পরিবারের জন্য বিরাট ধাক্কা। এর মধ্যে নজরুল নিজেও সড়ক দুর্ঘটনায় আহত হয়ে পড়ে আছেন। তাদের পরিবারে চিকিৎসা করাবে, এমন সামর্থ্যবান কেউ নেই। ফরিদা বেগম ক্যানসার আক্রান্ত হওয়ার পর থেকে পরিবারটির সব কিছু এলোমেলো হয়ে গেছে। এখন নিরুপায় এ পরিবারের পাশে সবাই যদি এগিয়ে আসে তাহলে দুই-তিন লাখ টাকা যোগাড় করা সম্ভব হবে।

এদিকে ক্যানসার আক্রান্ত মায়ের চিকিৎসার জন্য সমাজের বৃত্তবান ও হৃদয়বান মানুষদের কাছে আর্থিক সহযোগিতার আকুতি জানিয়েছে অসহায় ফরিদার অসহায় দুই সন্তান। ক্যানসারমুক্ত একটি সুস্থ, সুন্দর ও সুখময় জীবন উপহারে ফরিদার চিকিৎসার জন্য সাহায্য বা আর্থিক সহযোগিতা করতে চাইলে এই (০১৮২২-৪৭২-৯৯৯) নম্বরে যোগাযোগ করুন।

– লালমনিরহাট বার্তা নিউজ ডেস্ক –