ব্রেকিং:
দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত আরো দুই হাজার ৩৮১ জনকে শনাক্ত করা হয়েছে। এ নিয়ে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে ৪৯ হাজার ৫৩৪ জনে দাঁড়িয়েছে। একই সময়ে মারা গেছেন আরো ২২ জন। এখন পর্যন্ত মারা গেছেন ৬৭২ জন। সোমবার দুপুর আড়াইটায় করোনা পরিস্থিতি নিয়ে অনলাইনে দৈনন্দিন স্বাস্থ্য বুলেটিনে এ তথ্য জানিয়েছেন স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা। গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলায় ছয়জন নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্যে দুইজন স্বাস্থ্যকর্মী, তিনজন গার্মেন্টসকর্মী ও একজন মাওলানা।
  • মঙ্গলবার   ০২ জুন ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৮ ১৪২৭

  • || ১০ শাওয়াল ১৪৪১

সর্বশেষ:
করোনাকালে অর্থনীতিতে স্বস্তি দিচ্ছে প্রবাসীদের আয় জুন মাস পর্যন্ত বিদ্যুৎ বিলের বিলম্ব ফি মওকুফের সিদ্ধান্ত বন্ধই থাকছে উবার-পাঠাওসহ সব রাইড শেয়ারিং ভারত সীমান্তের অংশ নিজেদের দাবি করে নেপালের পার্লামেন্টে বিল পেশ খেলাধুলার পাশাপাশি ফলাফলেও এগিয়ে বিকেএসপির ক্যাডেটরা
১৫১

লালমনিরহাটে চাষিদের ধান কেটে দিলেন প্রাথমিক চাকরি প্রত্যাশীরা   

– লালমনিরহাট বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ৮ মে ২০২০  

করোনা পরিস্থিতিতে লালমনিরহাটে এবার হত-দরিদ্র চাষিদের ধান কেটে ঘরে তুলে দিলেন প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক নিয়োগ-২০১৮ প্যানেল প্রত্যাশী প্রার্থীরা।

শুক্রবার (৮ মে) সকালে কালীগঞ্জ উপজেলার মতাদী ইউনিয়নের কৃষক আবুল কালাম আজাদের দুই বিঘা জমির ধান কাটার মাধ্যমে এই কর্মসূচি শুরু করেন চাকরি প্রত্যাশীরা।

জানা গেছে, করোনাভাইরাসের কারণে ধান কাটার জন্য পর্যাপ্ত শ্রমিক পাওয়া যাচ্ছে না। এ জন্যই কৃষকের ধান কেটে দেওয়ার জন্যই পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক নিয়োগ-২০১৮ প্যানেল প্রত্যাশী প্রার্থীরা।

কৃষক আবুল কালাম আজাদ জানান, করোনা ভাইরাসের কারণে ধান কাটা শ্রমিক পাওয়া যাচ্ছিল না। তারা এসে আমার দুই বিঘা জমির ধান কেটে দিয়েছে। তাদের আল্লাহ ভালো করবে। তাছাড়াও প্রধানমন্ত্রী কাছে অনুরোধ করছি, তাদের বেকার না রেখে চাকরি দেওয়ার ব্যবস্থা করবেন।

প্যানেল বাস্তবায়ন কমিটির জেলা সভাপতি শাহিন আলম বলেন, জেলার বেশিরভাগ কৃষকরা শ্রমিক সংকটের কারণে ধান কাটতে পারছেন না। তাই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশক্রমে আমরা কৃষকের ধান কেটে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। প্রথমধাপে কৃষক আবুল কালাম আজাদের দুই বিঘা জমির ধান কেটে ঘরে তুলে দেওয়া হলো। পর্যায়ক্রমে জেলার প্রতিটি গ্রামে হত-দরিদ্র চাষিদের ধান কেটে দিয়ে ঘরে তুলে দিবো।

তিনি আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রীর কাছে আমাদের একটাই দাবি পূর্বের নিয়োগের মতো ২০১৮ সালের নিয়োগেও প্যানেলের মাধ্যমে নিয়োগ দিয়ে আমাদের বেকারত্বের অভিশাপ থেকে মুক্তি দিন। ২০১৮ সালে ২৪ লাখ চাকরি প্রার্থীর সঙ্গে প্রতিযোগিতা করে আমরা ৫৫ হাজার ২৯৫ লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছি। যা মোট পরীক্ষার্থীর ২ দশমিক ৩ শতাংশ। ফলে আমাদের যোগ্যতা নিয়ে কোনো সংশয় নেই।

– লালমনিরহাট বার্তা নিউজ ডেস্ক –
লালমনিরহাট বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর