ব্রেকিং:
দিনাজপুরে গত ২৪ ঘণ্টায় ২ জন ব্যক্তি করোনা ভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত হয়েছেন। এ নিয়ে জেলায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ৪ হাজার ৬৬১ জনে। মঙ্গলবার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন দিনাজপুরের সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ আব্দুল কুদ্দুছ।
  • মঙ্গলবার   ২৬ জানুয়ারি ২০২১ ||

  • মাঘ ১৩ ১৪২৭

  • || ১২ জমাদিউস সানি ১৪৪২

সর্বশেষ:
২৭ জানুয়ারি করোনা ভ্যাকসিনেশনের উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী রংপুরে নির্মিত হচ্ছে আল্লাহর ৯৯ নামের স্তম্ভ সব জেলায় ৪-৫ দিনের মধ্যে ভ্যাকসিন পৌঁছে যাবে- পাপন দিনাজপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় চাচা ভাতিজাসহ নিহত ৩ কৃষিকে আকর্ষণীয় পেশায় পরিণত করছে `রাইস ট্রান্সপ্লান্টার`

মানুষ বিএনপির নাম ভুলতে বসেছে 

– লালমনিরহাট বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ৭ নভেম্বর ২০২০  

কেন্দ্র থেকে শুরু করে তৃণমূল পর্যায়েও কোনো কার্যক্রম না থাকায় বিএনপি নামের যে একটি দল রয়েছে, সেটিই ভুলতে বসেছে মানুষ। বর্তমানে এ দলটির সাংগঠনিক কোনো কার্যক্রম কার্যত চোখে পড়ে না।
দলীয় সূত্র জানায়, দলকে সুসংহত ও সংগঠিত না করে যেকোনো নির্বাচনে অংশগ্রহণ করার দলীয় সিদ্ধান্তে নাখোশ বিএনপির তৃণমূল নেতারা। দল না গোছানোর পাশাপাশি নেতৃত্বের দ্বন্দ্ব নিরসন না করেই নির্বাচনে অংশগ্রহণ করায় বিএনপির এমন শোচনীয় পরাজয় হয়েছে বলে মনে করছেন অনেকেই।

দলের ক্রমাগত পরাজয়ের কারণ খুঁজে বের করে প্রয়োজনে ব্যর্থ সিনিয়র নেতাদের বহিষ্কারেরও দাবি তুলেছে সূত্রটি। দল রক্ষায় স্বজনপ্রীতি বাদ দিয়ে যোগ্যদের পদায়নেরও দাবি তুলেছেন তৃণমূল নেতারা।

বিএনপির তৃণমূল পর্যায়ের একাধিক নেতা বলেন, জাতীয় নির্বাচন থেকে ইউনিয়ন পরিষদ- সব ধরনের নির্বাচনেই বিএনপি যাচ্ছেতাইভাবে পরাজিত হচ্ছে। দলে শৃঙ্খলা না থাকায় তৃণমূলের রাজনীতিতেও খেই হারিয়ে ফেলেছে বিএনপি।

তারা বলেন, তৃণমূলকে জাগ্রত করতে কেন্দ্রের কোনো তৎপরতাই নেই। অদৃশ্য কারণে তৃণমূলের পুনর্গঠন নিয়ে বিএনপির হাইকমান্ডের নীরবতা নেতা-কর্মীদের ভাবিয়ে তুলছে। শীর্ষ নেতারা লোভে পড়ে বিএনপিকে বিশৃঙ্খল করে রেখেছেন।

গুঞ্জন উঠেছে, নিজেদের স্বার্থে ইচ্ছাকৃতভাবে বিএনপির তৃণমূলকে নিষ্প্রভ করে রেখেছেন দলের কিছু সুবিধাবাদী নেতা। তাই দল বাঁচাতে এসব সুবিধাবাদী নেতাদের খুঁজে বের করে বহিষ্কার করারও দাবি উঠছে।

তৃণমূলের পুনর্গঠন নিয়ে হাইকমান্ডের নীরবতা ও নিষ্ক্রিয়তার বিষয়ে জানতে চাইলে দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ বলেন, তৃণমূল পুনর্গঠন একটি দীর্ঘ প্রক্রিয়া।

তিনি আরো বলেন, বিএনপির প্রাণ ছিল তৃণমূল। সেই তৃণমূল এখন মৃতপ্রায়। বিষয়টি আমাকে কষ্ট দেয়। কিন্তু কিছু বলতে গেলে পদে পদে বাধা আসে। তাই কষ্ট লাগলেও নীরবে এসব সহ্য করতে হয়।

– লালমনিরহাট বার্তা নিউজ ডেস্ক –