• বুধবার   ২৭ মে ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১২ ১৪২৭

  • || ০৪ শাওয়াল ১৪৪১

সর্বশেষ:
নিলুফার মঞ্জুরের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক যে কোনো সময় ‘দ্বিতীয় ঝড়’ শুরু হবে: ডাব্লিউএইচও বাংলাদেশের তৈরী ৬৫ লাখ পিপিই গেল যুক্তরাষ্ট্রে করোনা: ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় রোগীদের খাবার পাঠালেন জেলা প্রশাসক সরকারি নির্দেশনায় ঈদের নামাজ আদায়: মুসুল্লীদের ধন্যবাদ
১২০৫

দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলে ধান কাটতে যাচ্ছেন লালমনিরহাটের শ্রমিকরা       

– লালমনিরহাট বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ৩০ এপ্রিল ২০২০  

লালমনিরহাট থেকে ৮ শত ৮৬ জন শ্রমিক ধান কাটতে গত কয়েক দিনে দক্ষিণাঞ্চলের বিভিন্ন জেলায় গেছেন। প্রথম ধাপে ৪২ জনকে হাওর ও দক্ষিণাঞ্চলে ধান কাটতে পাঠিয়েছে লালমনিরহাট জেলা প্রশাসন। আরও কয়েক শতাধিক শ্রমিক যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে জানা গেছে। যারা যাবেন ইতোমধ্যে তাদের অনেকের ডাক্তারি পরীক্ষাসহ যাবতীয় প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। সরকারি খরচে পাঠানো হচ্ছে তাদের। লালমনিরহাট জেলা প্রশাসক আবু জাফর এসব তথ্য জানান।

গত বৃহস্পতিবার জেলার কালীগঞ্জ উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গণ থেকে সরকারি ভাবে গাজীপুরের উদ্দেশে যাত্রা করেছেন অর্ধশতাধিক কৃষি শ্রমিক। এ সময় শ্রমিকদের হাতে হাতে কৃষি বিভাগের প্রত্যয়নপত্র, উন্নতমানের ফেস মাস্ক, খাবার, জীবাণুনাশক স্প্রে, প্রয়োজনীয় ওষুধসহ বিভিন্ন উপকরণ তুলে দেন কালীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রবিউল হাসান। এর আগে প্রাথমিক স্বাস্থ্য পরীক্ষা শেষে করোনাভাইরাস সংক্রান্ত প্রয়োজনীয় ধারনা দেয়া হয় শ্রমিকদের।

জানা গেছে, তিস্তা ও ধরলা নদীর ভাঙ্গনের কারণে লালমনিরহাট জেলায় শ্রমিকের সংখ্যা অন্য জেলার চেয়ে অনেক বেশি। প্রতি বছর ধান কাটা মৌসুমে হাজার হাজার কৃষি শ্রমিক দক্ষিণাঞ্চলের বিভিন্ন জেলায় যান। এ অঞ্চলে বোরো ধান কাটতে আরও অন্তত ১৫-২০ দিন দেরি আছে। দক্ষিণাঞ্চলে ইতোমধ্যে ধান পেকে যাওয়ায় শ্রমিকদের অভাবে ধান কাটা এবং মাড়াই করা যাচ্ছে না। এবার করোনাভাইরাসের কারণে যান চলাচল বন্ধ থাকার কারণে লালমনিরহাট থেকে কৃষি শ্রমিকরা অন্য জেলায় যেতে পারছেন না। এই অবস্থায় কৃষি মন্ত্রণালয় থেকে দক্ষিণাঞ্চলের জেলা গুলোতে ধান কাটা শ্রমিক সংকট দূর করতে লালমনিরহাট জেলা প্রশাসনকে কৃষি শ্রমিক পাঠানোর তাগিদ দেওয়া হয়েছে। এ কারণে যারা যেতে রাজি হয়েছেন, তাদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করে প্রয়োজনীয় সনদপত্র সিভিল সার্জনের দফতর থেকে গ্রহণ করা হচ্ছে। সেই সঙ্গে যারা যাবেন, তাদের জন্য পরিবহন সুবিধাও দেওয়া হচ্ছে। 

লালমনিরহাট কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মোঃ শামীম আশরাফ জানান, লালমনিরহাটের ৫ উপজেলার বিভিন্ন এলাকার ৮৮৬ জন  শ্রমিক ধান কাটতে দক্ষিণাঞ্চলে গেছেন। এ নিয়ে গত এক সপ্তাহে ৮ শত ৮৬ জন  শ্রমিক দক্ষিণাঞ্চলের বিভিন্ন জেলায় ধান কাটতে গেছেন। এছাড়া আরও কয়েক শতাধিক শ্রমিক বিভিন্ন স্থানে যাওয়ার জন্য প্রস্তুতি নিয়েছেন। কৃষি শ্রমিক সংকট দূর করতে এবং কৃষি শ্রমিকদের দক্ষিণাঞ্চলে পাঠাতে কৃষি মন্ত্রণালয় জরুরি পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। 

লালমনিরহাট জেলা প্রশাসক আবু জাফর বলেন, অনেকেই প্রতি বছর ধান কাটতে দক্ষিণাঞ্চলের বিভিন্ন জেলাসহ হাওর অঞ্চলে যান। সেখানে তারা মজুরিও বেশি পান। কিন্তু করোনার কারণে এবার শ্রমিকরা আতঙ্কিত। এরই মধ্যে অনেক শ্রমিককে দক্ষিণাঞ্চলে ধান কাটতে পাঠানো হয়েছে এবং আরো পাঁচ শতাধিক কৃষি শ্রমিকের তালিকা করা হয়েছে। পর্যায়ক্রমে তাদের দেশের বিভিন্ন জেলা ও উপজেলায় ধান কাটতে পাঠানো হবে।

– লালমনিরহাট বার্তা নিউজ ডেস্ক –
লালমনিরহাট বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর