ব্রেকিং:
বাংলাদেশে পৌঁছেছে ভারতের উপহারের ২০ লাখ ডোজ করোনা টিকা ‘কোভিশিল্ড’। বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টার কিছু আগে ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে এয়ার ইন্ডিয়ার বিশেষ ফ্লাইটটি। অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার এ টিকা বাংলাদেশকে উপহার হিসেবে দিলো ভারত সরকার।
  • বৃহস্পতিবার   ২১ জানুয়ারি ২০২১ ||

  • মাঘ ৮ ১৪২৭

  • || ০৭ জমাদিউস সানি ১৪৪২

সর্বশেষ:
দেশে করোনার টিকাদান শুরু হবে ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী মুজিববর্ষ উপলক্ষে ৯ লাখ পরিবারকে বাড়ি দিচ্ছে সরকার ঠাকুরগাঁওয়ে জনপ্রিয় হয়ে উঠছে পলিথিনে ঢাকা বীজতলা ৪’শ কোটি টাকায় প্রতিবন্ধীদের জন্য ক্রীড়া কমপ্লেক্স করবে সরকার বিনাশুল্কে বাংলাদেশি ৮২৫৬ পণ্য যাচ্ছে চীনের বাজারে

ঠাকুরগাঁওয়ে সঠিকভাবে করোনা ভ্যাকসিন বণ্টন হবে- রমেশ

– লালমনিরহাট বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২৪ ডিসেম্বর ২০২০  

করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন বাংলাদেশের আসার পর সেটি ঠাকুরগাঁওয়ে মজুদ, সরবরাহ ও সঠিকভাবে সবার মাঝে বণ্টন করা হবে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও ঠাকুরগাঁও-১ আসনের সংসদ সদস্য রমেশ চন্দ্র সেন।

বুধবার (২৩ ডিসেম্বর) বিকেলে ঠাকুরগাঁও জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে করোনাভাইরাস নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ এবং করোনা ভাইরাসের ভ্যাকসিন প্রদান কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে সম্পাদনের জন্য গঠিত জেলা কমিটির আলোচনা সভায় তিনি এ কথা জানান।

রমেশ চন্দ্র সেন বলেন, বিশ্বে বেশ কয়েকটি করোনা প্রতিরোধক ভ্যাকসিন তৈরি হয়েছে। আমরা আশা করি খুব অল্প সময়ের মধ্যে সেই ভ্যাকসিন বাংলাদেশে পৌঁছে যাবে। ভ্যাকসিন পাওয়ার পর, তা সবার মাঝে সঠিকভাবে বণ্টন করা হবে। যাতে করে মানুষ এই করোনাভাইরাসকে প্রতিরোধ করতে পারে।

করোনার ভ্যাকসিন আসার পর সেটি ঠাকুরগাঁওয়ে বিজ্ঞানসম্মত উপায়ে সঠিক তাপমাত্রায় সংরক্ষণ ও সরবরাহ করতে স্বাস্থ্যবিভাগকে নির্দেশ দিয়েছেন সাংসদ রমেশ চন্দ্র সেন। একই সঙ্গে টিকা কর্মসূচি পরবর্তী বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় জোর দিয়েছেন তিনি।

এই সংসদ সদস্য বলেন, আমাদের সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। স্বাস্থ্য অধিদফতর ও মন্ত্রণালয়ের মধ্যে কোনো ধরনের সমন্বয়হীনতা নেই। সরকারের পাশাপাশি আমরা সবাই এখন একযোগে দেশ সেবার কাজ করে যাচ্ছি।

তিনি আরও বলেন, ঠাকুরগাঁওয়ের প্রশাসন ও স্বাস্থ্যবিভাগ জেলায় করোনাভাইরাস নিয়ন্ত্রণ এবং প্রতিরোধে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। আমরা তাদের ধন্যবাদ জানাতে চাই। একই সঙ্গে স্বাস্থ্যবিভাগের বেঁধে দেয়া করোনা প্রতিরোধের নিয়মাবলী সবাইকে মেনে চলতে হবে। তাই এই প্রাণঘাতি মহামারি প্রতিরোধ করা সম্ভব।

ঠাকুরগাঁওয়ের জেলা প্রশাসক ড. কেএম কামরুজ্জামান সেলিমের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য দেন- সিভিল সার্জন ডা. মাহফুজুর রহমান সরকার, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর) মো. মোসফেকুর রহমান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) নুর কুতুবুল আলম, সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. নাদিরুল আজিজ চপল, জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম স্বপন, জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি মাহাবুবুর রহমান খোকন প্রমুখ।

সভায় ঠাকুরগাঁওয়ের জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, স্বাস্থ্য বিভাগসহ বিভিন্ন দফতরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারাও উপস্থিত ছিলেন।

– লালমনিরহাট বার্তা নিউজ ডেস্ক –