• শুক্রবার   ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ||

  • ফাল্গুন ১৪ ১৪২৭

  • || ১৪ রজব ১৪৪২

সর্বশেষ:
করোনা মোকাবিলায় বাংলাদেশের প্রশংসা করলেন জাতিসংঘ মহাসচিব বাংলাদেশ থেকে ইন্টারনেট ব্যান্ডউইডথ নিতে আগ্রহী ভুটান বিশ্বের সেরা তিন রাষ্ট্রপ্রধানের একজন শেখ হাসিনা: ওবায়দুল কাদের কর্মসংস্থান সৃষ্টিই বর্তমান সরকারের লক্ষ্য: প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশ ১০ কোটি ভ্যাকসিন নিশ্চিত করেছে

এক সেতুতে খুশি হাতীবান্ধার হাজারো মানুষ 

– লালমনিরহাট বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১  

লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলার উত্তর সিন্দুর্না এলাকায় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদফতরের অধীনে গ্রামীণ রাস্তায় সেতু ও কালভার্ট নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় ৩৮ ফুট দৈর্ঘ্যের একটি সেতু নির্মাণ করা হয়েছে। ফলে চর সিন্দুর্নাসহ পার্শ্ববর্তী উপজেলার চাপানী এলাকার কয়েক হাজার মানুষ নির্বিঘ্নে যাতায়াত করতে পারায় আজ তারা খুশি।

জানা যায়, উপজেলার উত্তর সিন্দুর্না এলাকার বালাপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে হাতীবান্ধা হাট যাওয়ার রাস্তায় একটি পুরাতন ভঙ্গুর সেতু থাকায় অনেক কষ্টে যাতায়াত করতে হয়েছে কয়েক হাজার মানুষকে। ওই রাস্তা দিয়ে উত্তর সিন্দুর্না, চর সিন্দুর্না ও চাপানী এলাকার কয়েক হাজার লোককে তাদের প্রয়োজনীয় কাজের জন্য উপজেলা সদরসহ হাতীবান্ধা হাটে যাতায়াত করতে হতো।

বর্ষাকালে বেশি বিপদে পড়তে হতো তাদেরকে। উত্তর সিন্দুর্না বালাপাড়া স্কুল, ৭ নম্বর ওয়ার্ডসহ চর সিন্দুর্না ও চাপানী এলাকায় কয়েক হাজার লোকের যোগাযোগের একমাত্র মাধ্যম এ রাস্তাটি। ব্রিজ নির্মাণের ফলে উপকৃত হয়েছে বানভাসি পরিবারসহ কয়েছে হাজার মানুষ।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদফতরের অর্থায়নে বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির আওতায় গ্রামীণ রাস্তায় সেতু নির্মাণ প্রকল্পে ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরে উত্তর সিন্দুর্না এলাকার বালাপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে লোকমানের বাড়ি যাওয়ার রাস্তায় ৩৩ লাখ ১৬ হাজার ৭৯৪ টাকা ব্যয়ে ৩৮ ফুট দৈর্ঘ্যের একটি সেতু নির্মাণের জন্য দরপত্র আহ্বান করা হয়।

উন্মুক্ত লটারির মাধ্যমে ৩১ লাখ ৬৫ হাজার টাকায় সে সেতু নির্মাণের কার্যাদেশ পায় জেলার আদিতমারী উপজেলার ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ‘ফাতেমা কন্সট্রাকশন’।

উত্তর সিন্দুর্না এলাকার আবুল হোসেন বলেন, এই রাস্তায় একটি অনেক পুরাতন সেতুর উপর দিয়ে আমাদেরকে কষ্ট করে হাট-বাজারসহ শহর-বন্দরে যাতায়াত করতে হয়েছে। বর্ষাকালে হাটবাজার করতে না পেরে অনেক সময় তাদের না খেয়ে থাকতে হয়েছে। এ সেতু নির্মাণের ফলে তাদের দুঃখ কিছুটা লাঘব হয়েছে।

সিন্দুর্না ইউপি চেয়ারম্যান নুরুল আমিন বলেন, উত্তর সিন্দুর্না এলাকায় সেতুটি নির্মাণ করার ফলে চরাঞ্চলসহ পার্শ্ববর্তী উপজেলার চাপানী এলাকায় কয়েক হাজার লোকের হাতীবান্ধা উপজেলায় প্রয়োজনীয় কাজের জন্য যাতায়াত করতে অনেক সুবিধা হয়েছে।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা ফেরদৌস আহমেদ বলেন, সরকারি শিডিউল মোতাবেক সেতু নির্মাণের সব কাজ বুঝে নেয়া হয়েছে। কয়েক দিনের মধ্যেই সেতুটি চলাচলের জন্য খুলে দেয়া হবে। এর ফলে ওই এলাকার হাজারো মানুষের যাতায়াত করতে অনেক সুবিধা হবে।

– লালমনিরহাট বার্তা নিউজ ডেস্ক –