• মঙ্গলবার   ২২ জুন ২০২১ ||

  • আষাঢ় ৭ ১৪২৮

  • || ১০ জ্বিলকদ ১৪৪২

সর্বশেষ:
সর্বোচ্চ পেশাদারী দক্ষতা ও উৎকর্ষতা অর্জনে মনোযোগ দিন- প্রধানমন্ত্রী ইভিএম পদ্ধতিতে ভোটগ্রহণ চলছে সেতাবগঞ্জ পৌরসভায় টাইগার মাল্টিপল লঞ্চ মিসাইল সিস্টেম যোগ হলো সেনাবাহিনীতে `রেটুন শস্য` আবাদে আলোড়ন তুলেছেন ভূরুঙ্গামারীর কৃষকরা দিনাজপুর সদরে আরো ৭ দিন বাড়ল লকডাউন

একঘরে অবস্থা থেকে মুক্তি পেল লালমনিরহাটের সেই তিন পরিবার

– লালমনিরহাট বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২৩ মে ২০২১  

লালমনিরহাট সদর উপজেলার খুনিয়াগাছ ইউনিয়নের ছেকনাপাড়া গ্রামে ফতোয়া দিয়ে একঘরে রাখা থেকে মুক্তি পেল তিন পরিবার।
রোববার (২৩মে) দুপুরে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সম্মেলনকক্ষে অনুষ্ঠিত বৈঠকে বিবদমান দুই পক্ষ সমঝোতা করতে রাজি হয়।
এ সময় লালমনিরহাট জেলা প্রশাসক  আবু জাফর দুই পক্ষকে ধন্যবাদ জানিয়ে ফুলেল শুভেচ্ছা দেন।

এর আগে গত ২০ মে লালমনিরহাট জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার ও লালমনিরহাট সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে (ইউএনও) একঘরে থাকা পরিবারের সদস্যরা লিখিত অভিযোগ করেন।

লালমনিরহাট সদর উপজেলার খুনিয়াগাছ ইউনিয়নের ছেকনাপাড়া গ্রামে জমি নিয়ে বিরধের জেরে ফতোয়া দিয়ে তিন পরিবারকে একঘরে করে রাখান। ওই তিন পরিবারকে ঈদের নামাজও পড়তে দেয়া হয়নি।

এ ঘটনায় ভুক্তভোগী তিন পরিবার ওই এলাকার মসজিদ কমিটি সদস্য আব্দুল মতিন ও ইমাম মাওলানা সহিদার রহমানের বিরুদ্ধে পুলিশ সুপার ও জেলা প্রশাসকের কাছে লিখিত অভিযোগ করেন।

লিখিত অভিযোগে জানা গেছে, ছেকনাপাড়া গ্রামে রিয়াজুল ইসলামের সঙ্গে একই গ্রামের আব্দুল মতিনের পরিবারের জমিজমা নিয়ে বিরোধ চলে আসছে। এরই জেরে আব্দুল মতিন ও ছেকনাপাড়া বাইতুল মাকাম জামে মসজিদের ইমাম মাওলানা সহিদার রহমান মিলে তিন পরিবারের লোকজনের ওপর মসজিদের মাইকে ঘোষণা দিয়ে ফতোয়া জারি করেন। রিয়াজুল ইসলাম (৭০), ইসাহাক আলী (৮৪) ও শতবর্ষী এমাদ উদ্দিন সরকারের পরিবারের ওপর এই ফতোয়া জারি করা হয়।

এ বিষয়ে লালমনিরহাট সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা উত্তম কুমার বলেন, ওই তিন পরিবার লিখিত অভিযোগ করার পর উভয় পক্ষের আজ রোববার দুপুরে জেলা প্রশাসক কার্যালয় এক বৈঠকে সমাধান হলো।

– লালমনিরহাট বার্তা নিউজ ডেস্ক –