ব্রেকিং:
১ ফেব্রুয়ারি ঢাকায় সাধারণ ছুটি ২১ সালের ১৬ ডিসেম্বর মেট্রোরেলের উদ্বোধন মেয়র-কাউন্সিলরদের জবাবদিহির আওতায় আনা হবে:আতিক দক্ষতা বৃদ্ধিতে প্রশিক্ষণের বিকল্প নেই: হাবিপ্রবি উপাচার্য

বুধবার   ২৯ জানুয়ারি ২০২০   মাঘ ১৫ ১৪২৬   ০৩ জমাদিউস সানি ১৪৪১

সর্বশেষ:
আড়ংয়ের ওয়াশ রুমে গোপনে ভিডিও করার ঘটনায় এক যুবককে গ্রেফতার করেছে ডিএমপির সাইবার ক্রাইম ইউনিট। ঢাকার উত্তর-দক্ষিণ সিটির ভোটে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষায় মাঠে থাকবে ৬৫ প্লাটুন বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)। ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ করার লক্ষ্যে ৩০ জানুয়ারি ভোর থেকে ৩ ফেব্রুয়ারি রাত ১২টা পর্যন্ত সব ধরনের বৈধ অস্ত্রবহন ও প্রদর্শনে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। চীনে অবস্থানরত আগ্রহী বাংলাদেশিদের দেশে আনার জন্য বেইজিংকে চিঠি দিয়েছে ঢাকা। আগ্রহী বাংলাদেশি নাগরিকদের ফিরিয়ে আনার লক্ষ্যে তৎপরতাও শুরু করেছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। মাদকের অপব্যবহারের বিরুদ্ধে বিপ্লব করতে শিক্ষার্থীদের- রাষ্ট্রপতি।
১১

আমরা নির্বাচনে বিতর্কে জড়ানো কোনো কাজ করবো না:কাদের

– লালমনিরহাট বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ১৩ জানুয়ারি ২০২০  

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিএনপির মহাসচিব সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের প্রচারণায় অংশ নিতে পারে আর আমি সাধারণ সম্পাদক হয়ে পারি না। তার পরেও বলবো আমরা বিতর্কে জড়ানো কোনো কাজ করবো না।
বুধবার আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় রাজনৈতিক কার্যলায়ে ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে থিম সং উদ্বোধন করার আগে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন তিনি।

কাদের বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের বাইরে য়াওয়ার আগে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্য বলেছেন শৃঙ্খলার মধ্যে থেকে নির্বাচনী প্রচারণা করতে। কোনো মতেই বিতর্কে জড়ানো কাজ করা যাবে না।

অপর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, বিএনপির মহাসচিব অংশ নিতে পারলে আওয়ামী লীগের সাধারণ  সম্পাদক কেনো পারবে না। এটা কেমন কথা। পাশের রাষ্ট্র ভারতে এমপি-মন্ত্রীরা অংশ নিতে পারবে আর আমাদের দেশে পারবে না। আমরা ইসিকে যুক্তিগত বিষয় জানিয়েছি। বিএনপির সিনিয়র নেতারা অংশ নিতে পারলেও আমরা পারছি না। তার পরেও এসব বিষয় নিয়ে বিতর্কে জড়াতে চাই না।

তিনি আরো বলেন, প্রচারণার বিষয়ে আমরা প্রতিবাদ করে মেনে নিয়েছি, তারপরেও অহেতুক বিতর্কে জড়াতে চাই না। সরকার নির্বাচনে ইন্টারফেয়ার করবে না। নীতিগতভাবে আমরা ইভিএমের পক্ষে। 

প্রধানমন্ত্রী পরিষ্কারভাবে বলেছেন নির্বাচন নিরপেক্ষ হতে হবে। নির্বাচন কমিশন সুষ্ঠু নির্বাচন করবে। সরকার সব ধরনের সহযোগিতা করবে।

রেজাল্ট যাই হোক সরকারি দল মেনে নেবে জানিয়ে কাদের বলেন, প্রশ্নবিদ্ধ ও বিতর্কিত নির্বাচন করতে চাই না। নির্বাচনী প্রচারণায় অভিযানে আমাদের প্রার্থীদের উপর হামলা হয়েছে। আচরণবিধি লঙ্ঘন হলে নির্বাচন কমিশন ব্যবস্থা নিতে পারে।

– লালমনিরহাট বার্তা নিউজ ডেস্ক –
এই বিভাগের আরো খবর